ঢাকা, আজ শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১

চেয়ারম্যান-মেম্বারের শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ ‘গুজব’

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২২ ০৭:২৮:৩১ || আপডেট: ২০১৯-০৯-২২ ০৭:২৮:৩১

ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ও মেম্বারের শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে প্রচারণা চালানো হচ্ছে তাকে ‘গুজব’ বলেছে সরকার।শনিবার এক সরকারি তথ্য বিবরণীতে এ কথা জানানো হয়েছে।ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের যোগ্যতা এইচএসসি এবং মেম্বার পদের যোগ্যতা এসএসসি নির্ধারণ করে সরকার আইন পাস করেছে বলে ফেসবুকে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

তথ্য বিবরণীতে বলা হয়েছে, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও মেম্বার পদের যোগ্যতার বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে খবর প্রচারিত হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর।এ ধরনের বিভ্রান্তিকর তথ্য সম্পর্কে সকলকে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে তথ্য বিবরণীতে।

আরএমএম/এমএআর/এমকেএইচ

জিদানের পরিবর্তে রিয়ালের নতুন কোচ কে? আলোচনা তুঙ্গে

প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) কাছে ৩-০ গোলে হারের পর রিয়াল মাদ্রিদ এবং কোচ জিনেদিন জিদানকে নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। এমনকি স্প্যানিশ এবং ইউরোপিয়ান মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে, বরখাস্ত হতে পারেন কোচ জিদান।

দ্বিতীয় মেয়াদে কোচের দায়িত্ব পালন করতে এসে রিয়াল মাদ্রিদে নিজেকে খাপ খাওয়াতে পারছেন না জিদান। যার ফলে সমালোচনার একটা ভিত তৈরি হয়েই আছে। এবার যখন পিএসজির কাছে হারলো, তখন সেটার বিস্ফোরণ ঘটেছে।

জিদানকে যদি সত্যি সত্যি বরখাস্ত করা হয় রিয়াল মাদ্রিদের কোচের পদ থেকে, তাহলে কে হবেন লজ ব্লাঙ্কোজদের পরবর্তী কোচ? কে হবেন রিয়ালের নতুন কান্ডারি?

আলোচনায় উঠে আসছে সাবেক কোচ হোসে মরিনহোর নাম। ম্যানইউর কোচের পদ থেকে বহিস্কারের পর দীর্ঘ সময় বেকার রয়েছেন পর্তুগিজ এই কোচ। মাদ্রিদ এবং পুরো স্পেনজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে- রিয়ালের পরবর্তী কোচ হচ্ছেন হোসে মরিনহো।

মাদ্রিদের জনপ্রিয় ক্রীড়া দৈনিক মার্কা এক জরিপে রিয়াল ভক্তদের কাছে জানতে চেয়েছে, তারা আসলে কাকে কোচ হিসেবে দেখতে চায়। অধিকাংশই জবাব দিয়েছে হোসে মরিনহোর নাম। প্রায় ৪৪ ভাগ মানুষ মরিনহোর পক্ষে ভোট দিয়েছে। এরপর রয়েছে জুভেন্টাসের সাবেক কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রির নাম। তিন নম্বরে রয়েছে রিয়াল কিংবদন্তি রাউল গঞ্জালেজের নাম।

হোসে মরিনহো ছাড়াও রিয়ালের কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন জুভেন্টাসের সাবেক কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি। তিনি আগেও রিয়ালের কোচ হওয়ার দৌড়ে ছিলেন। কিন্তু ২০১৮ সালে হোসে লোপেতেগুইয়ের কাছে হার মানেন অ্যালেগ্রি, আন্তোনিও কন্তে এবং মাওরিসিও পোচেত্তিনো।

রিয়ালের সাবেক অধিনায়ক জিদানের পথেই পা বাড়াতে চান। জিদান রিয়ালের বি টিম থেকে রাফায়েল বেনিতেজ বরখাস্ত হওয়ার পর উঠে আসেন। রাউলও তেমন হতে চান রিয়ালের কোচ। সান্তিয়াগো সোলারিও দায়িত্ব পালন করেছিলেন গত মৌসুমে। এবার তাদের পথ ধরে উঠে সারা সম্ভাবনা রাউলের।