ঢাকা, আজ শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১

এবার ঢাকায় আসছেন মিন্নি

প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২২ ০৭:১৯:২৭ || আপডেট: ২০১৯-০৯-২২ ০৭:১৯:২৭

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হ’ত্যা মামলায় জামিনে থাকা নিহতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ঢাকায় আসছেন। হাইকোর্টে নিঃস্বার্থভাবে আইনি লড়াই করা আইনজীবীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতেই মূলত ঢাকায় আসছেন তিনি।

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) মিন্নির পরিবার ও আইনজীবীদের একাধিক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, শনিবার বিকেলে মিন্নি বাবার সঙ্গে বরগুনা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। মিন্নির একাধিক আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রোববার সুপ্রিম কোর্টে এসে মিন্নি তার প্রধান আইনজীবী জেড আই খান পান্নার চেম্বারে সব আইনজীবীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। তবে আদালতের নিষেধ থাকায় গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলবেন না তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন বরগুনা জেলা শহরের কলেজ রোডে প্রকাশ্যে কু’পিয়ে হ’ত্যা করা হয় রিফাতকে। ওই ঘ’টনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় নামে। এরপর ২ জুলাই এ হ’ত্যা মামলার প্রধান সন্দেহভাজন সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দু’কযু’দ্ধে নি’হত হন।

এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হ’ত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মামলায় ১ নম্বর সাক্ষী করা হয়।

কিন্তু মিন্নির শ্বশুরই পরে হ’ত্যাকাণ্ডে পুত্রবধূর জড়িত থাকার অ’ভিযোগ তোলেন। এরপর ১৬ জুলাই মিন্নিকে বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। পরে সেদিন রাতে তাকে রিফাত হ’ত্যা মামলায় গ্রে’প্তার দেখানো হয়। গত ২ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট থেকে শর্তসাপেক্ষে জামিন পান মিন্নি।

বাংলাদেশকে ১৩৯ রানের টার্গেট দিল আফগানিস্তান

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের ষষ্ঠ ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে আফগানিস্তান। উদ্বোধনী জুটিতে ৭৫ রান করা দলটি এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১৩৯ রানে থেমে যায়।

শনিবার চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে নিয়মরক্ষার ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শফিউল ইসলামের বাউন্সি বলে শূন্যে ক্যাচ তুলে দেন আফগান ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ।

কিন্তু ফাইন লেগে ওঠা সহজ ক্যাচটি তালুন্ধি করতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ফ্লাডলাইটের ওপরে ওঠা বলটি রিয়াদের হাত ফঁসকে বেরিয়ে যায়। দলীয় ৮ আর ব্যক্তিগত ৩ রানে নতুন লাইফ পান আফগান ওপেনার। নতুন জীবন পেয়ে হযরতউল্লাহ জাজাইয়ের সঙ্গে রীতিমতো ব্যাটিং তাণ্ডব চালান গুরবাজ। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৯.৩ ওভারে স্কোর বোর্ডে ৭৫ রান যোগ করেন তারা।

১০ম ওভারে বোলিংয়ে এসেই পরপর দুই উইকেট তুলে নেন তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন। আফগান শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন তরুণ এ অফ স্পিনার। হযরতউল্লাহকে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করেন আফিফ।

ইনিংসের শুরু থেকে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া আফগান এ ওপেনার সাজঘরে ফেরার আগে ৩৫ বলে ৬টি চার দুই ছক্কায় ৪৭ রান করেন।

ভালো শুরুর পর ওয়ান ডাউনে ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেননি আফগানিস্তানের সাবেক অধিনায়ক আসগর আফগান। তিনি আফিফের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হয়ে সাজঘরে ফেরেন।

আফগান শিবিরে তৃতীয় আঘাত হানেন কাটার মাস্টার খ্যাত মোস্তাফিজুর রহামান। তার শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরন অন্য ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ। ২৭ বলে ২৯ রান করে আউট হন তিনি।

বাংলাদেশের বিপক্ষে আগের ম্যাচে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে ৮৪ রানের ইনিংস খেলা মোহাম্মদ নবীকে শনিবার উইকেটে সেট হওয়ার আগেই সাজঘরে ফেরান সাকিব। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে সাকিবের তৃতীয় শিকারে পরিণত হয়ে সাজঘরে ফেরেন নবী।

চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে আগের তিন ম্যাচের দুটিতে ব্যাট মাত্র ১০ রান করার সুযোগ পান আফগান সাবেক অধিনায়ক গুলবাদিন নাইব। অফ ফর্মে থাকা এ অলরাউন্ডার রান আউট হওয়ার আগে মাত্র ১১ রান করার সুযোগ পান।

মোহাম্মাদ সাইফউদ্দিনের বলে বোল্ড হয়ে দলীয় ১০৯ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন নজিবুল্লাহ জাদরান। করিম জানাতকে মুশফিকের ক্যাচে পরিণত করে সাজঘরে ফেরান শফিউল। শেষ দিকে রশিদ খানরা প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে না পারায় ১৩৮ রান গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান।