ঢাকা, আজ বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১

হাত-পা নেই, তবুও মুখ দিয়ে কোরআনের পাতা উল্টিয়ে হাফেজ হলেন তারিক

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১৭ ০৯:৪৫:০৭ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১৭ ০৯:৪৫:০৭

৩৫ বছর বয়সী তারিক আল-ওদায়ীকে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা দমাতে পারেনি। অদম্য স্পৃহায় ৪ বছরে কোরআনে হাফেজ হয়েছেন তিনি। হাত-পা নেই এর পরও মুখ দিয়ে আল-কোরআনের পাতা উল্টিয়ে নিয়মিত কোরআন তেলাওয়াত করেন তারিক।

সৌদি আরবের আসির প্রদেশের সিরাহ ওবাইদা শহরের ৩৫ বছর বয়সী এই তারিক আল-ওদায়ীর বাসায় গিয়ে তার শিক্ষক পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও হেফজ প্রশিক্ষণ দিতেন। হাত এবং পা বিহীন এই তারিক পেটে ভর করে পথ চলেন। তিনি পেশী ক্ষয়িষ্ণুতায় ভুগছেন। কঠিন রোগের ভোগেও তিনি ৩০ পারা কোরআন মুখস্থ করতে সক্ষম হয়েছেন।

এছাড়াও তারিক টেলিফোন এবং কম্পিউটার চালানো শিখেছেন ও সামাজিক নেটওয়ার্কেও তিনি সক্রিয় রয়েছেন। বিভিন্ন আলেমদের সাথে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যোগাযোগ রাখেন বলে জানা গেছে।

সৌদি আরবের আসির প্রদেশের কোরআন হেফজ সেন্টারের সহযোগিতায় নিয়মিত ক্লাসে অংশগ্রহণ করে তিনি ৪ বাছরে সম্পূর্ণ কোরআন হেফজ করতে সক্ষম হয়েছেন।

কোরআনের জ্ঞানের মাঝে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি: জায়রা ওয়াসিম

ইসলাম ও জীবন কোরআনের বিশাল এবং ঐশ্বরিক জ্ঞানের মধ্যে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি। সিনেমা ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে জানালেন দঙ্গল ছবিতে খ্যাতি পাওয়া বলিউড অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম। তিনি বলেন, সৃষ্টিকর্তার জ্ঞান, তাঁর গুণাবলী, তাঁর করুণা এবং তাঁর আদেশের জ্ঞান অর্জনে তার হৃদয় শান্তি পায়।

নিজের ঈমান বাঁচাতে সিনেমা ছাড়ার ঘোষণা দিলেন দঙ্গলকন্যা খ্যাত অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম। ছবি-সংগৃহিত। জায়রা তাঁর ইনস্টাগ্রাম পোস্টে এমনটাই জানালেন। পুরো পোস্টটাই তিনি লিখেছেন ইংরেজীতে।

লিখেছেন এতদিন নিজের বিবেকের সঙ্গে প্রতারণা করে কী ভাবে সৃষ্টিকর্তা দ্বারা সৃষ্টির প্রকৃত উদ্দেশ্য ভুলে নিজের জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি। নিজের ব্যক্তিগত বিশ্বাসের বদলে আল্লাহ-র উপরেই যে ভীষণ ভাবে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন জায়রা ওয়াসিম সেই কথাও লিখেছেন।

তিনি লিখেছেন, সাফল্য, খ্যাতি, সম্পদ যে পর্যায়ে পৌঁছে যাক না কেন, তাতে যেন কখনও শান্তি এবং নিজের বিশ্বাস না হারিয়ে যায়। জায়রা ওয়াসিম এর ইনস্টগ্রাম পোস্ট। ছবিটি ইনস্টাগ্রাম থেকে নেওয়া। বলিউড জীবন এবং নিজের ঈমান নষ্ট হওয়ার বিষয়ে তিনি লিখেছেন, ‘আমি বুঝতে পেরেছি আমি বহু দিন ধরেই অন্য একজন হয়ে ওঠার চেষ্টা করে চলাচ্ছিলাম।

আমি বুঝতে পেরেছি, যদিও আমি এখানে সুন্দর ভাবে ফিট হতে পারব কিন্তু আমি এটার জন্য নয়। এই ফিল্ড আমাকে অনেক ভালবাসা, সমর্থন, প্রশংসা দিয়েছে, কিন্তু এই ফিল্ড আর যেটা করেছে তা হল আমাকে ক্রমশ অবমাননার দিকে ঠেলে দিয়েছে, ক্রমশ অসচেতন ভাবে আমি আমার ঈমান (বিশ্বাস)-এর থেকে বেরিয়ে এসেছি।

কারণ আমি এমন একটা পরিবেশে কাজ করতাম যা ক্রমাগত আমার ঈমানের মাঝে এসে দাঁড়াত, ধর্মের সঙ্গে আমার সম্পর্ক বিপন্ন হয়ে পড়েছিল।’ পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে থেকে নিজের ঈমান বাঁচাতে স্রষ্টার দেখানো পথে হাঁটা শুরু করলেন উদীয়মান এই নায়িকা জায়রা ওয়াসিম।

ফিল্মি কেরিয়ার তাঁর বিশ্বাস এবং ধর্মের মাঝখানে এসে দাঁড়িয়েছে এবং সে কারণেই যে তিনি অভিনয় ছাড়ছেন, জায়রার পোস্টে বারবারই সে কথাই উঠে এসেছে।