ঢাকা, আজ শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১

ক্লাস থেকে ডেকে নিয়ে ছাত্রীকে ধ*র্ষণ করলো দূর সম্পর্কের মামা

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১১ ১১:৩৫:১১ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১১ ১১:৩৫:১১

নড়াইলের নড়াগাতি থানার মাউলি ইউনিয়নের চান্দেরচর-পঞ্চগ্রাম নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে স্কুল থেকে ডেকে নিয়ে ধ*র্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (১০ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে স্কুল পাশের পাটক্ষেতে চান্দেরচর এলাকায় এ ধ*র্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত নয়ামাউলি গ্রামের সমেদ মোল্যাকে (৩০) আটকের জন্য মাঠে নেমেছে পুলিশ। মেয়েটি নড়াগাতি থানায় পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

ভূক্তভোগী স্কুলছাত্রী জানায়, বুধবার বেলা ১১টার দিকে মাউলি গ্রামের দুর সম্পর্কের মামা সমেদ মোল্যা তার সঙ্গে স্কুলে এসে কথা বলার জন্য পাশে ডেকে নেয়। কথা বলার এক পর্যায়ে সমেদ মোল্যার গতিবিধি খারাপ মনে হলে, মেয়েটি স্কুল ক্যাম্পাসে ফিরে আসতে চাইলে সমেদ তাকে বাঁধা দেয়। ওড়না দিয়ে মেয়েটির মুখ বেঁধে পাটক্ষেতে নিয়ে ধ*র্ষণ করে পালিয়ে যায়। ভূক্তভোগী মেয়েটি স্কুল এসে তার শিক্ষকদের জানায়। এ সময় শিক্ষকেরা তার পরিবারকে খবর দেয়।

নড়াগাতি থানার ওসি আলমগীর কবির বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্ত সমেদকে আটকের চেষ্টা চলছে। সমেদ মাউলি গ্রামের আব্দুস সাত্তার মোল্যার ছেলে।

গোসল করানোর কথা বলে শিশু নাতনীকে ধ*র্ষণচেষ্টা, আটক দাদা

নাটোর সদরের লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের কাঁঠালবাড়ীয়া গ্রামে ৬ বছরের শিশুকে ধ*র্ষণ চেষ্টার অভিযোগে সাত্তার ভূঁইয়া নামে পঞ্চাশোর্ধ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।আটক সাত্তার ভূইয়া উপজেলার কাঠালবাড়ীয়া গ্রামের মৃ*ত আনোয়ার ভূইয়ার ছেলে। নির্যাতনের শিকার শিশুটি ইসলামী ফাউন্ডেশন পরিচালিত মসজিদ ভিত্তিক শিক্ষাক্রম এর শিক্ষার্থী।পুলিশ নাটোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী জালাল উদ্দিন ও নির্যাতিতার পরিবার জানায়, মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে সম্পর্কে দাদা সাত্তার ভূঁইয়া অযাচিত ভাবে পুকুরে গোসল করতে যাওয়ার কথা বলে শিশুটিকে নিয়ে বের হয় । এরপরে সাত্তার ভূঁইয়া পুকুরে না গিয়ে শিশুটিকে ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বিবস্ত্র করে ধ*র্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় শিশুটির চিৎকারে তার দাদী সেখানে ছুটে গেলে অভিযুক্ত সাত্তার ভূঁইয়া পালিয়ে যায়।

পুলিশ জানায়, রাতেই অভিযুক্ত সাত্তার ভূইয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় নির্যাতিতা শিশুর বাবা বাদী হয়ে ধ*র্ষণ চেষ্টাকারী সাত্তার ভুঁইযার এর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

ঘরে দরিদ্রতা প্রবেশ করে যে সাত কারণে জেনে নিন
দারিদ্র্য হল এমন একটি অর্থনৈতিক অবস্থা, যখন একজন মানুষের জীবনযাত্রার ন্যূনতম মান অর্জন এবং সামান্য আয়ের ফলে জীবনধারণের অপরিহার্য দ্রব্যাদি ক্রয় করার সক্ষমতা হারায়।ইসলামের দৃষ্টিতে দারিদ্র্য হচ্ছে এমন এক অবস্থা, যা মানব জীবনের অব্যাহত প্রয়োজনীয় পণ্য বা মাধ্যম উভয়েরই অপর্যাপ্ততা বুঝায়।

দরিদ্রতা আসে সাত জিনিসের কারণেঃ

১। তাড়াহুরা করে নামায পড়ার কারণে!

২। দাঁড়িয়ে পেশাব করার কারণে!

৩। পেশাবের জায়গায় অজু করার কারণে!

৪। দাঁড়িয়ে পানি পান করার কারণে!

৫। ফুঁ দিয়ে বাতি নিভানোর কারণে!

৬। দাঁত দিয়ে নখ কাটার কারণে!

৭। পরিধেয় বস্ত্র দ্বারা মুখ সাফ করার কারণে!

সচ্ছলতা আসে সাত জিনিসের কারণেঃ

১। কুরআন তেলাওয়াত করার কারণে।

২।পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ার কারণে।

৩। আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করার কারণে।

৪। দরিদ্র ও অক্ষমদের সাহায্য করার কারণে।

৫। গোনাহের ক্ষমা প্রার্থনা করার কারণে।

৬। পিতা-মাতা ও আত্মীয়-স্বজনদের সাথে সদাচরণ করার কারণে।

৭। সকালে সূরা ইয়াসিন এবং সন্ধ্যায় সূরা ওয়াকিয়া তেলাওয়াত করার কারণে।

আল্লাহ আমাদের সবাইকে তওফিক দান করুন

আল্লাহ আমাদের সবাইকে তওফিক দান করুন
——আমিন !!!