ঢাকা, আজ সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

ভারত-চীন সীমান্তে ‘সংঘ’র্ষের ভিডিও ফাঁস’, নাখোশ নয়াদিল্লি

প্রকাশ: ২০২০-০৫-৩১ ১৯:৩৭:৩৯ || আপডেট: ২০২০-০৫-৩১ ১৯:৩৭:৩৯

লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘ’র্ষের একটি ভিডিও ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যেখানে চীনা সেনাদের হাতে ভারতের সেনাদের র’ক্তাক্ত হতে দেখা যায়। এই ভিডিও প্রকাশে বেজার হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। তাদের বক্তব্য, ভিডিওটি যারা ছড়িয়েছেন তারা ‘সত্যতা যাচাই’ করেননি। যদিও এ নিয়ে আসাদউদ্দিন ওয়াইসিসহ ভারতের রাজনীতিকরা কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য দাবি করেছেন।
null

null

null
দুই মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে লাদাখের প্যাংগং সো লেকের ধারে ভারতীয় এবং চীনা সেনার মধ্যে সংঘর্ষ এবং এতে ভারতীয় জওয়ানদের র’ক্তাক্ত হতে দেখা যায়। ওই লেক ঘিরেই ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে উ’ত্তেজনা তুঙ্গে উঠেছে। দুপক্ষই সীমান্তে সৈন্য-সামন্ত জড়ো করেছে বলে খবরে এসেছে।
null

null

null
কিন্তু ভিডিওটির ব্যাপারে ভারতীয় সেনাবাহিনীর দাবি, সেটির সত্যতা যাচাই করা হয়নি। তারা বলছে, উত্তর সীমান্তের পরিস্থিতির সঙ্গে কোনো কিছুর যোগ দেখানোর যে কোনো চেষ্টা ‘অ’বৈধ’। কার্যত এর মাধ্যমে ভিডিওটিকে ‘জোড়াতালি দেয়া’ বলেই দাবি করা হচ্ছে।
null

null

null
রোববার (৩১ মে) সকালে এক বিবৃতিতে এ বিষয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল আমন আনন্দ বলেন, সীমান্তের ঘটনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানো একটি ভিডিও আমাদের নজরে এসেছে। সেখানে আ’পাতত কোনো সংঘাত হচ্ছে না। দু’দেশের সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের নির্দিষ্ট প্রটোকোল অনুযায়ী সেনা কমান্ডাররা আলোচনার মাধ্যমে বিবাদের সমাধান করছেন।
null

null

null
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, সীমানা বিবাদের ধারাবাহিকতায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) বরাবর পূর্ব লাদাখের চারটি জায়গায় ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি খুব মা’রাত্মক না হলেও সং’ঘর্ষের এমন ভিডিও ছড়ানোয় ক্ষু’ব্ধ ভারতীয় সেনাসদর।
null

null

null
কর্নেল আনন্দ বলেন, জাতীয় সুরক্ষার ওপর প্রভাব বিস্তারকারী কোনো বিষয় অতিরঞ্জিত করার চেষ্টার কড়া নিন্দা জানানো হচ্ছে। সংবাদমাধ্যমকে এরকম ছবি না দেখানোর আর্জি জানানো হচ্ছে যা সীমান্তে বর্তমান পরিস্থিতিকে খারাপ করতে পারে।
null

null

null
সেনাসদর এভাবে বক্তব্য দিলেও নিখিল ভারত মজলিস-এ-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের (এআইএমআইএম) প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি ভিডিও থেকে নেয়া একটি ছবি তার ফেসবুক পেজে শেয়ার দিয়ে বিজেপি সরকারের কাছে ব্যাখ্যা দাবি করেছেন। তিনি এতে বলেন, এটা যদি সত্য হয়
null

null

null
তবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বা প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের উচিত সর্বশক্তি নিয়ে এর জবাব দেয়া। যদি তা না হয়, তবে তাদের এটি নাকচও করতে হবে এবং চীন সীমান্তে কী ঘটছে তা দেশবাসীকে জানাতে হবে। কী কথা হচ্ছে চীনের সাথে? মোদির লোকেরা এখন মুখে কু’লুপ এঁটেছে!
null

null

null
ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, এমন ভিডিও ছড়ানোর ঘটনা এবারই প্রথম নয়। এর আগে ২০১৭ সালের অগস্টে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, প্যাংগং লোকের দু’দেশের জওয়ানরা একে অপরকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ছেন। সেটি নিয়েও অ’সন্তোষ প্রকাশ করেছিল সেনাসদর।
null

null

null