ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০

সেনাবাহিনী ঘর নির্মাণ করে দেয়ায় মহা খুশি দুঃস্থ অসহায় আলমগীর

প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৪ ১১:০৩:৩৬ || আপডেট: ২০২০-০৫-২৪ ১১:০৩:৩৬

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ঘূর্ণিঝড় আমফানে অসহায় আলমগীর হাওলাদার (৫০) এর ভে’ঙে পড়া ঘর নতুন করে নির্মাণ করে দিয়েছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। শনিবার (২৩ মে) দুপুরে উপজেলার বলেশ্বর নদ তীরবর্তী বড়মাছুয়া ইউনিয়নের খেজুরবাড়িয়া গ্রামের স্ট্রীমার ঘাট এলাকায় দুঃস্থ অসহায় আলমগীর হাওলাদারের ঘর নির্মাণ করে দেয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর শেখ হাসিনা সেনানীবাস সাত null
null
nullপদাতিক ডিভিশন ২৬ হর্স রেজিমেন্ট এর ক্যাপ্টেন এনামুল হক এর নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর একটি টিম । স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন জানান, ঘূর্ণিঝড়ে আলমগীরের ভে’ঙে যাওয়ার ঘর সেনাবাহিনী দুপুরে এসে নতুন টিন, কাঠ, বাঁশ কিনে একটি ঘর তৈরি করে দেয়। নতুন ঘর পেয়ে মহা খুশি ওই দুঃস্থ আলমগীরের পরিবারের সদস্যরা। ক্যাপ্টেন এনামুল হক জানান, ঘূর্ণিঝড় আমফানের শেষে ওই এলাকায় পরিদর্শনে যাই। সেখানে গিয়ে ৫টি অসহায় পরিবারের ভে’ঙে পড়া ঘর দেখি। ঘূর্ণিঝড় আমফানে অসহায় পরিবারগুলোর ভে’ঙে যাওয়া ঘরগুলো পর্যায় ক্রমে পূনঃনির্মান করা হবে। দেশের সকলnull
null
null দুর্যোগ মো’কাবেলায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কাজ করে। করোনা মো’কাবেলায় আমরা সামাজিক দূরত্ব, সচেতনতাসহ অসহায় দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য ও চিকিৎসা দিয়ে আসছি।ফেনী: ফেনীতে মহান আল্লাহ ও মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর নাম খচিত দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্য তৈরি করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে শহরের মহিপালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন মিয়াজী বাড়ি সড়কের সম্মুখে ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী। এ সময় পৌরসভার মেয়র হাজী আলাউদ্দিন, প্যানেল মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, পৌর null
null
nullকাউন্সিলর লুৎফুর রহমান খোকন হাজারী, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক নাছির খান, পৌর যুবলীগ সহ-সভাপতি তৌহিদুর রহমান হানিফ ও ফেনী সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ জিএস রবিউল হক রবিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ফেনী পৌরসভার অর্থায়নে ১৪ ফুট উচ্চতার ভাস্কর্যটি নির্মাণ করেছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বেস্ট কনস্ট্রাকশন। এর সুউচ্চে আরবি অক্ষরে ‘আল্লাহু’ ও ‘মুহাম্মদ’ লেখা রয়েছে। রাতে আলোর ঝলকানিতে পানির ফোয়ারায় সৌন্দর্যে বাড়তি মাত্রা যোগ হবে। ভাস্কর্যটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১০ লাখ টাকা। এ বিষেয়ে ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম null
null
nullস্বপন মিয়াজী বলেন, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর তত্ত্বাবধানে পৌর কর্তৃপক্ষ ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। এছাড়া তার ওয়ার্ডে বিজয়সিংহ দীঘির সৌন্দর্যবর্ধনসহ বেশ কিছু উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে।আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানের করাচিতে শুক্রবার (২২ মে) বিধ্ব’স্ত হওযা বিমানের ৯৯ আরোহীর মধ্যে ৯৭ জনই মা’রা গেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পিআইএ কর্তৃপক্ষ। ওই বিমান থেকে বেঁ’চে ফেরা এক যাত্রীর বর্ণনা নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বিবিসি। বিবিসির খবরটি এমটিনিউজ ২৪.কমের পাঠকের উদ্দেশে তু’লে ধ’রা হলো; বিমানের ফ্লাইট রেকর্ডার null
null
nullউ’দ্ধার করা হয়েছে, ঘ’টনার কারণ তদ’ন্তের প্রক্রিয়া শুরু করেছে সরকার। তবে পাকিস্তানের পাইলটদের সমিতি বলছে, সরকারি তদ’ন্তের ওপর তাদের কোন আস্থা নেই।পাকিস্তানের জাতীয় এয়ারলাইনসের বিমানটিতে ছিলেন ৯১ জন যাত্রী আর ৮ জন ক্রু। তাদের মধ্যে দু’জন ভাগ্যক্রমে বেঁ’চে গেছেন, বাকি ৯৭ জনের সবাই নিহ’ত হয়েছেন বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।এখন মৃ’তদে’হগুলো আত্মীয়স্বজনদের হাতে তু’লে দেওয়ার আগে ডিএ’নএ টেস্ট করে সেগুলো শনা’ক্ত করার কাজ চলছে। বিমান বিধ্ব’স্ত হওয়ার কারণ এখনো জানা যায়নি, তবে সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, লাহোর থেকে আসা ফ্লাইটটির পাইলট null
null
nullএকবার অবতরণ করার চেষ্টা করেও ব্য’র্থ হয়েছিলেন এবং কারিগরি ত্রু’টির কথা কন্ট্রো’ল টাওয়ারকে জানিয়েছিলেন।সংবাদমাধ্যমে প্রচার হওয়া এক রেকর্ডিংএ পাইলট বিমানটির ইঞ্জিন বিক’ল হওয়ার কথা বলছিলেন বলে শোনা গেছে। যেভাবে বেঁ’চে গেলেন মুহাম্মদ জুবায়ের: বেঁ’চে যাওয়া যাত্রীদের একজন মুহাম্মদ জুবায়ের বলেন, বিমানটি স্বাভাবিকভাবেই উড়ছিল এবং ভেতর থেকে যাত্রীরা বুঝতেই পারেন নি যে বিমানটি মাটিতে পড়ে যাচ্ছে।এ সময় তিনি সং’জ্ঞা হা’রিয়ে null
null
nullফে’লেছিলেন, কিন্তু একটু পর জ্ঞা’ন ফিরে এলে তিনি দেখতে পান চারদিকে আগুন জ্ব’লছে। মানুষের আ’র্তচিৎ’কার শুনছিলাম সব দিক থেকে – প্রাপ্তবয়স্ক, শিশু সবার আ’র্তচিৎ’কার। যেদিকে তা’কাচ্ছি শুধু আগুন আর আগুন। কোনো মানুষ দেখতে পাইনি -শুধু চিৎ’কার শুনেছি।আমি সিটবেল্ট খু’লে ফেলি। তারপর আলো দেখতে পাই। আলোর দিকে ছু’টে যাই আমি তারপর লাফ দেই ১০ ফুট নিচে। ধ্বং’সাবশেষ থেকে লা’ফিয়ে পড়ে প্রাণে বেঁ’চে যাই। জুবায়ের সামান্য null
null
nullআহ’ত হয়েছেন। তিনি বলছেন, পাইলট প্রথমবার অবতরণ করার চেষ্টা করে ব্য’থ হন। এর ১০-১৫ মিনিটের মধ্যেই বিমানটি ভে’ঙে পড়ে। ইতোমধ্যে ফ্লাইট ডাটা এবং ব্ল্যা’কবক্সটি উদ্ধা’র করা হয়েছে, তদ’ন্ত শুরু হয়েছে।তবে পাকিস্তানের পাইলটদের সমিতি বলছে, সরকারি তদ’ন্তের ওপর তাদের আস্থা নেই এবং তারা আন্তর্জাতিক তদ’ন্তকারীদের সম্পৃ’ক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল বিমানটি ভে’ঙে পড়ার পর টিভি ফুটেজ থেকে দেখা যায়, এলাকার বহু বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একজন প্রত্যক্ষদর্শী মোহাম্মদ উজায়ের জানান বিকট আওয়াজ শুনে তিনি বাইরে বেরিয়ে যান।প্রায় চারটি বাড়ি পুরো বিধ্ব’স্ত হয়ে null
null
nullগেছে। প্রচুর ধোঁয়া আর আগুন জ্ব’লছে। ওরা আমার প্রতিবেশী। ভ’য়ংকর দৃ’শ্য। আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী ড. কানওয়াল নাজিম বলেন, তিনি মানুষের চিৎ’কার শোনেন ও দেখেন মসজিদ লাগোয়া তিনটি বাড়ি থেকে ঘন কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলি উঠছে। অনেক গাড়িতে আগুন ধ’রে যায়। নিহ’তদের মধ্যে কতজন বিমানের যাত্রী এবং কতজন ওই এলাকার বাসিন্দা তা কর্তৃপক্ষ এখনও নিশ্চিত করতে পারেননি। ১৯ জনের পরিচয় শনা’ক্ত করা হয়েছে।যাত্রীদের মধ্যে অনেকেই রমজানের শেষে ঈদ উদযাপনের প্রস্তুতিতে তাদের বাড়িতে যাছিল।