ঢাকা, আজ সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

বেকার বসে না থেকে করোনার এই সুযোগে হাফেজ ডেকে কোরআন শিক্ষার ব্যবস্থা করলেন পৌর মেয়র

প্রকাশ: ২০২০-০৫-২১ ১৭:২৯:১৩ || আপডেট: ২০২০-০৫-২১ ১৭:২৯:১৩

তানোর (রাজশাহী): পবিত্র মাহে রমজান কোরআন নাজিলের মাস। সে হিসেবে দেশ-বিদেশের অনেক স্থানে সহিহশুদ্ধভাবে কোরআন শিক্ষার আসর কিংবা কোরআন পড়ার ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু পৌরসভায় কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কোনআন শিক্ষার ব্যবস্থার আয়োজন খুব কমই দেখা যায়। কিন্তু এটাও সম্ভব। পবিত্র কোরআন শিক্ষার এমন আয়োজনের মহান খেদমত চালু করেছেন তানোর পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান। তানোর পৌরসভার হলরুমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কোরআন শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তানোর পৌর কাউন্সিলর ওnull
null
null কর্মকর্তা/কর্মচারীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, করোনার কারণে পৌরসভায় সকল প্রকার কাজকর্ম বন্ধ থাকলেও করোনার প্রভাবে এই দুর্যোগ মুহূর্তে জনগণের মাঝে সরকারের ত্রাণ বিতরণের জন্য পৌর কার্যালয়ে অবস্থান করতে হচ্ছে। রোজার কারণে যোহরের নামাজের পর বসে বসে খোশ গল্প আর আড্ডা দেয়া ছাড়া তেমন কোন কাজকর্ম থাকে না। এসময় সবাই মেয়রকে কোরআন শিক্ষার ব্যবস্থা চালুর কথা জানান। এর প্রেক্ষিতে গত ৯ মে থেকে পৌরসভার হলরুমে কোরআনnull
null
null শিক্ষার ব্যবস্থা চালু করা হয়। তানোর পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান বলেন, পৌরসভার কাউন্সিলরসহ কর্মকর্তা/কর্মচারীরা অনেকেই কোরআন পড়তে জানেন না। করোনার প্রভাবে পৌরসভায় ছুটি রয়েছে কিন্তু সরকারের নির্দেশে ত্রাণ বিতরণের জন্য সকলকেই পৌর কার্যালয়ে থাকতে হচ্ছে। বেকার বসে না থেকে এই সুযোগে যেন সবাই কোরআন শিক্ষা গ্রহণ করতে পারেন সেজন্য একজন হাফেজ ডেকে কোরআন শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।স্পোর্টস ডেস্ক: পবিত্র null
null
nullশবে কদরের রাতে মুমিন বান্দারা ক্ষমাপ্রার্থনা ও শান্তি-সমৃদ্ধি কামনায় প্রার্থনা করেন মহান রবের কাছে। লাইলাতুল কদরের এই রাতটি ফজিলতপূর্ণ ও বরকতময়। মহান এই রাতে আল্লাহ-তায়ালার কাছে ফরিয়াদ জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। করোনাভাইরাস ও অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্বানের দুর্যোগময় মুহূর্তে ফজিলতপূর্ণ লাইলাতুল কদরের রাতে আল্লাহর দরবারে নিজেদের ভুলভ্রান্তির জন্য ক্ষমা চেয়ে নিতে ভক্ত-সমর্থকদের আহ্বান জানিয়েছেন null
null
nullবাংলাদেশ ক্রিকেটের পোস্টার বয় সাকিব। বুধবার রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে এ আহ্বান জানান সাকিব। পোস্টে তিনি লেখেন- ‘পবিত্র এই রাতটিতে আমরা সর্বশক্তিমান আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই আমাদের সকল ভুলভ্রান্তির জন্য। করোনাভাইরাস মহামা’রির এই ক্রা’ন্তিকালে সর্বশক্তিমানের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা আমাদের জন্য আরও গুরুত্বপূর্ণ। তাই পবিত্র এই রাতে আমরা পরম করুণাময়ের কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা করি এবং সুন্দর একটি null
null
nullভবিষ্যতের কামনা করি।’
আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ‘আমার ছেলেকে বাঁচান, শুধু ওকে বাঁচান’ শেষ আকুতি করে নিজে ডুবলেন সাগরে! এটাই ছিল সাবেক রেসলার শাড গ্যাসপার্ডের শেষ কথা। গত রোববার সমুদ্রে ভেসে গেছেন ডব্লু ডব্লুইর সাবেক তারকা গ্যাসপার্ড (৩৯ বছর)। পরিবার তিনদিন ধরে আশায় ছিল, লড়াকু গ্যাসপার্ড হইয়তো কোনো না কোনোভাবে টিকে রয়েছেন। কোনো আশ্রয় খুঁজে নিয়ে ঠিকই ফিরে আসবেন পরিবারের কাছে। কিন্তু সে আশাও শেষ হয়েnull
null
null গেছে কাল। বুধবার সকালে সমুদ্র তীরে খুঁ’জে পাওয়া গেছে গ্যাসপার্ডের শরীর। ক্যালিফোর্নিয়ার ভেনিস সমুদ্র সৈকতে গত রবিবার দুর্ঘটনায় পড়েন গ্যাসপার্ড ও তাঁর ছেলে আরিয়েহ। লকডাউনের পর এই প্রথম আবার সৈকত উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছিল। গ্যাসপার্ড ও তাঁর ছেলে কোমর পানিতে সাতার কাটছিলেন। কিন্তু হঠাৎ তীব্র এক স্রোত এসে দুজনকে ভাসিয়ে নিয়ে যায়। তীর থেকে প্রায় ৭৫ গজ দূরে এ দুজনকে দেখে একজন লাইফগার্ড তাঁদের বাঁ’চানোর জন্য যান। ২ মিটারের null
null
nullবেশি উঁচু ঢেউয়ের মাঝে দুজনকে বাঁ’চানোর জন্য ‘রেসকিউ ক্যান’ বাঁধার চেষ্টা করেন ওই লাইফ গার্ড। কিন্তু ১০ বছরের আরিয়েহ কোনোভাবেই বাঁধতে পারছিল না সেটা। তখনই গ্যাসপার্ড আগে ছেলেকে বাঁ’চানোর অনুরোধ করেন। সৈকতের ওই অংশের লাইফগার্ড প্রধান কেনিচি হ্যাসকেট ওই সময়ের অসহায়’ত্বের কথা জানিয়েছেন এভাবে, ‘ওই লাইফগার্ড তীর থেকে ৭৫ গজ দূরে দুজন মানুষকে বাঁ’চানোর লক্ষ্যে নেমেছিল। ভদ্রলোকের শারীরিক গঠন (সাড়ে ৬ ফিট উচ্চতা, ১২৩null
null
null কেজি) ও পানির অবস্থায়… এটা বোজা গিয়েছিল দুজনকে একবারে ফেরানো সমভব নয়… এমন সিদ্ধান্ত আমরা কখনোই তে চাই না। গ্যাসপার্ডের শেষ কথাটি ছিল “আমার ছেলেকে বাঁচান, শুধু ওকে বাঁচান।”’ লাইফগার্ড আরিয়েহকে তীরে এনেই আবার গিয়েছিলেন গ্যাসপার্ডের জন্য। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি, ‘৬০ সেকেন্ডের মধ্যে লাইফগার্ড ফিরেছিল শাডকে আনার জন্য। তাঁকে দেখেছিল কিন্তু একটা ঢেউ এসে ধাক্কা দিল পানির নিচে পাঠিয়ে দিল শাডকে।’ শাড আর মাথা তোলেননি। null
null
nullতবিবারে এই ঘটনার পর থেকে তাঁর খোঁজে সাতটি উ’দ্ধার অভিযান চালানো হয়েছিল। কিন্তু সারে ১৬৫ ঘন্টার অ’ভিযান ও ৭০ নটিক্যাল মাইল এলাকা খুঁ’জেও তাকে না পাওয়ায় অভিযান বন্ধ করে দেওয়া হয়। গতকাল সকালে সাগর থেকে ভেসে আসা একজনের মৃ’তদেহ খুঁজে পাওয়ার পর এক পুলিশ কর্তৃপক্ষকে জানায়। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সেটা গ্যাসপার্ডের বলে নিশ্চিত করেছে। ডব্লুডব্লুইর ক্রাইম টাইম জুটির অংশ ছিলেন গ্যাসপার্ড। ২০০৮ সালে জন সেনার সঙ্গে কিছুদিন জোট বেধেছিল ক্রাইম টাইম। ২০১০ অবসর নেওয়ার পর অভিনেতা হিসেবে ক্যারিয়ার গড়েছিলেন গ্যাসপার্ড।-প্রথম আলো