ঢাকা, আজ রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

‘আমার দুই সন্তানকে দয়া করে তাড়িয়ে দেবেন না,’ করোনাক্রান্ত সার্জেন্টের আবেগঘন স্ট্যাটাস

প্রকাশ: ২০২০-০৫-১৯ ১১:১৯:৫৩ || আপডেট: ২০২০-০৫-১৯ ১১:১৯:৫৩

করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ট্রাফিক সার্জেন্ট মো. ইমরুল ইসলাম। হাসপাতালে শুয়েই ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি। স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন- ‘ক্ষমা চাই মহান আল্লাহর কাছে।

ক্ষমা চাই জন্মলগ্ন থেকে পরিচিত সবার কাছে। আমার অনুপস্থিতিতে আমার দুই সন্তান কারও কাছে আমার পরিচয়ে দিয়ে গেলে তাড়িয়ে দেবেন না, দয়া করে। আল্লাহ মহান। আমার শরীরটা ভালো যাচ্ছে না। আইসিইউ বেড নম্বর-৭, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতাল।’

ট্রাফিক সার্জেন্ট মো. ইমরুল ইসলাম পড়াশোনা করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগে। গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী। জগন্নাথে পড়াশোনা করার সময় ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি। ফেসবুকে আরেকটি স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, ‘বাবা তুমি বাইরে যেওনা। বাইরে করোনাভাইরাস। তুমি বাইরে গেলে করোনাভাইরাস হলে আমি কিছু জানি না।
null
null
null
এভাবেই বলত আমার তিন বছর চার মাসের ছেলে রাফসান। এখন ওকে কী জানাব। শুধু বলব স্যরি পাপা, তোমার কথা মতো চলতে না পারার জন্য। আল্লাহ মাফ করলে তোমার সব কথা শুনব।’ রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের পরিচালক ডিআইজি হাসানুল হায়দার গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আইসিইউতে থাকলেও ইমরুলের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল।দিল্লির কেরালা ভবনে গরুর মাংস রাখার অভিযোগে দিল্লি পুলিশের তল্লাশি অভিযানের বিপক্ষে মুখ খুললেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজধানী দিল্লীতে কেরল সরকার পরিচালিত কেরলা ভবনে গরুর মাংস রাখার অভিযোগে তল্লাশি চালায় পুলিশ। যদিও তল্লাশি অভিযানে গরুর মাংস খুঁজে পাওয়া যায়নি।
null
null
null
এ ঘটনার প্রতিবাদে ভারতের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল প্রতিবাদ জানিয়েছে। একদিকে যেমন কেরল সরকারের তরফে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে, অন্যদিকে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তিনি কটাক্ষ করে টুইট করেছেন।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, দিল্লি পুলিশের আচরণ মৌলিক স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার সামিল।দিল্লিতে আম আদমি পার্টি পরিচালিত সরকার থাকলেও, দিল্লি পুলিশ সরাসরি ভারত সরকারের দ্বারা পরিচালিত হয়।তিনি বলেন ‘আমি হিন্দু, গরুর মাংস খেয়েছি, আবার খাব’।হিন্দু ধর্মের কোথাও লেখা নাই যে, গরু খাওয়া যাবে না।
null
null
null
এ ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর প্রতিবাদে মুখর হয়েছে ভারতের বামপন্থী দলগুলোও। সিপিএম’র সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি জানিয়েছেন, পুলিশ ‘নীতি পুলিশ’র ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।প্রচণ্ড গরম পড়ায় আমাগো খাবার পইচ্যা যেত। সেই খাবার খাইয়্যা চলত আমাদের। এখন আমাগো একটা ফ্রি দিল। আমাগো এখন আর পঁচা ভাত খাইতে হবে না। খাওয়ার পর যে ভাত বাঁচবো তা ফ্রিজে রাইখা দেব।’

এমনভাবেই কথাগুলো বলছিলেন কাশিয়ানী উপজেলার রাজপাট ইউনিয়নের হাইশুর বৃদ্ধাশ্রমে থাকা সত্তোরোর্ধ বৃদ্ধা ঝর্ণা বসু। তার মতোই এ বৃদ্ধাশ্রমে আছেন ১৮ জন বৃদ্ধ ও বৃদ্ধা।

বৃদ্ধাশ্রমের এসব বৃদ্ধ ও বৃদ্ধাদের জন্য গোপালগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের পক্ষে একটি ফ্রিজ উপহার দিলেন গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নীতিশ রায়।
null
null
null
সোমবার সকালে বৃদ্ধাশ্রমের সেবক আশুতোষ বিশ্বাসের কাছে এ ফ্রিজ হস্তান্তর করেন তিনি। এ সময় গোপালগঞ্জ রিপোর্টাস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এস.এম নজরুল ইসলাম, গোপালগঞ্জ টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রাজীব আহম্মেদ রাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ বৃদ্ধাশ্রমে থাকা মঙ্গল কৃর্ত্তলীয়া নুরুজ্জামান নুরু ও ফুলমতি বেগম বলেন, অনেক সময় আমাদের খাবার বেচে যেতে। কিন্তু একটি ফ্রিজের অভাবে সে খাবার হয়তো পচে গিয়ে নষ্ট হতো না হয় ফেলে দিতে হতো। এখন আর সেটি করতে হবে না। বেচে যাওয়া খাবার ফ্রিজের রেখে পরদিন গরম করে খেতে পারবো। ফ্রিজ উপহার পেয়ে খুশি তারা।

হাইশুর বৃদ্ধাশ্রমের সেবক আশুতোষ বিশ্বাস জানান, প্রায় ২২ বছর আগে মানবিক কারণে এই বৃদ্ধাশ্রমটি গড়ে তোলেন তিনি। এরপর থেকে নিজস্ব তহবিল ও সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সহযোগিতা নিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে একটি ফ্রিজের অভাবে প্রায় প্রতিদিনই রান্না করা খাবার সংরক্ষণের অভাবে নষ্ট হতো। অসহায় বাবা-মায়েদের কথা চিন্তা করে ফ্রিজ উপহার দেয়ায় ধন্যবাদ জানান তিনি।
null
null
null
গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান নীতিশ রায় বলেন, গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার হাইশুরে অবস্থিত এই বৃদ্ধাশ্রমে ১৮ জন অসহায় বাবা-মা থাকেন। যখন জানতে পারি একটি ফ্রিজের অভাবে তাদের প্রতিদিনের খাবার নষ্ট হচ্ছে, তখনই গোপালগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্যকে বিষয়টি জানালে তিনি একটি ফ্রিজ উপহার দেয়ার নির্দেশ দেন। আগামীতেও এই বৃদ্ধাশ্রমের পাশে থাকার কথা জানান তিনি।