ঢাকা, আজ শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

মধ্যরাতে করোনায় আক্রান্ত যুবককে মা’রধর করে তাড়িয়ে দিলেন বাড়িওয়ালা!

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৭ ১৫:১৩:০৩ || আপডেট: ২০২০-০৫-০৭ ১৫:২১:৩৭

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে নাজমুল নামে করোনায় আক্রান্ত এক যু’বককে মধ্যরাতে মা’রধর করে রাস্তায় বের করে দেয়ার অ’ভিযোগ উঠেছে বাড়ির মালিকসহ স্থানীয় প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তির বিরুদ্ধে।বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার রূপসী বাগবাড়ি এলাকায় মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে।মা’রধর করে তাড়িয়ে দেয়ার পর নাজমুল একটি মসজিদের সামনে থাকা একটি রিকশায় বসে কান্নাকাটি করতে থাকেন। এসময় তার পরনে ছিল পিপিই গাউন। এ অবস্থাতেই রাস্তায় বের করে দেয়া হয় তাকে।

পরে তাকে উদ্ধারে তৎপরতা চালায় থানা পুলিশ এবং উপজেলা প্রশাসন।নি’র্যাতনের শি’কার করোনা রোগী নাজমুল ময়মিনসিংহের বাসিন্দা আবু সিদ্দিকের ছেলে।

রুপগঞ্জের রূপসী বাগবাড়ি এলাকার নূর হোসেন ওরফে কাইল্লা নূরার বাড়িতে ভাড়া থেকে তিনি স্থানীয় সিটি গ্রুপে চাকরি করার পাশাপাশি লেখাপড়া করছেন বলেও এলাকাবাসী ও স্বজনরা জানিয়েছেন।

নাজমুলের মামা সিরাজ বলেন, নাজমুলের জ্ব’র, সর্দিসহ করোনার নানা উপসর্গ দেখা দিলে ৩ মে উপজেলার স্বাস্থ্য বিভাগে তার নমুনা দিয়ে আসি। বুধবার রিপোর্টে তার পজিটিভ আসে। কিন্তু তার কোনো উপসর্গ ছিল না। তারপরও চিকিৎসকের পরামর্শে বাসাতেই ছিল। কিন্তু বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর রাতে বাড়ির মালিকসহ এলাকার কিছু লোকজন এসে জোর করে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এই অবস্থায় সে মীরবাড়ি মসজিদের কাছে দাঁড়িয়ে আছে। এটা খুবই অমানবিক একটি কাজ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মমতাজ বেগম যুগান্তরকে বলেন, আমি একটু আগে বিষয়টি শুনেছি। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ডাক্তার এবং পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আমি নিজেও ওই ছেলের সঙ্গে কথা বলেছি। এমন অমানবিক কাজ কেউ করতে পারে না।কুমিল্লা : করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকায় স্ত্রী-সন্তান ঘরে ঢু’কতে দেননি। তাই আশ্রয় নেন বোনের বাড়িতে। অঃপর সেখানেই মৃ’ত্যু হয় গার্মেন্টস কর্মীর! তিনি কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের মুদাফর্দি গ্রামের নজরুল ইসলাম (৫৫)। মৃ’ত্যু হয় একই উপজেলার বোনের বাড়ি বারপাড়া ইউনিয়নের বারইকান্দি গ্রামে। বুধবার বিকালে তাকে দা’ফন করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ঢাকার মিরপুরে একটি গার্মেন্টসে চাকরি করতেন নজরুল ইসলাম। গত ৩ দিন আগে করোনা উপসর্গ নিয়ে নিজ বাড়িতে আসেন। শরীরে উপসর্গ থাকায় নিজের স্ত্রী ও সন্তানেরা বাড়িতে জায়গা না দিয়ে ঢাকায় চলে যেতে বলে। তখন রাত গভীর।

নজরুল নিরুপায় হয়ে বোনের বাড়ি বারপাড়া ইউনিয়নের বারইকান্দি গ্রামে লুকিয়ে আশ্রয় নেন। ৬ মে স্বাস্থ্যের অবনতি হলে বিষয়টি দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অবহিত করা হয়। চিকিৎকরা সেখানে পৌঁছানোর আগেই ওই ব্যক্তি মা’রা যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহিনুল আলম সুমন জানান, তার স্বাস্থ্যের অবনতি হলে রেপিড রেসপন্সটিম পাঠাই। এর মধ্যেই তিনি মৃ’ত্যুবরণ করেন। তার নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য বিধি মেনে দাফ’ন করা হয়। আত্মীয় স্বজন বা অন্য কেউ আগে তার সম্পর্কে আমাদেরকে জানালো না।

আরও দুঃখজনক হল স্ত্রী ও নিজ সন্তানরা তাকে নিজ বাড়িতে ঢু’কতে দিল না। দাউদকান্দিবাসীকে বলব, এই করোনাভাইরাস দুনিয়াতেই হাশরের মাঠে কি হবে তা দেখিয়ে দিচ্ছে। তাই সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে দয়া করে ঘরে থাকুন। নতুবা কালকে এমন মৃত্যু আপনারও হতে পারে।মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন , আমিরাত প্রতিনিধি: সংযুক্ত আরব আমিরাতের আলআইন সিটিতে করোনাভাইরাসে আক্রা’ন্ত হয়ে মাত্র ১৭ দিনের ব্যবধানে বাংলাদেশি দুই ভাইয়ের মৃ’ত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে গত ১৯ এপ্রিল যার মৃ’ত্যু হয় তার নাম বেদারুল ইসলাম। ৬ মে তার ছোট ভাই শাহ আলম মা’রা যান।

তারা চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের নূর আলি টেন্ডল বাড়ির মৃত ডা. শামসুল আলমের দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুত্র। এখন পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে দেশটির নাগরিক ও প্রবাসীসহ করোনাভাইরাসে মোট আক্রা’ন্তের সংখ্যা ১৫,৭৩৮ জন। এর মধ্যে মা’রা গেছেন ১৫৭ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,৩৫৯ জন।

এদিকে করোনাভাইরাসের কারণে দেশটিতে কর্মহীন হয়ে পড়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছেন বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশ থেকে পাঠানো এসব খাদ্যসামগ্রী বাংলাদেশ মিশনের তত্ত্বাবধানে প্রবাসীদের মাঝে বিতরণ করছে কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠন ও বাংলাদেশ সমিতি।

অপরদিকে করোনা পজিটিভ পাকিস্তানিদের ফেরত পাঠিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত। কয়েকশ প্রবাসী পাকিস্তানি দেশে ফিরে আসার পর পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। পাকিস্তানের সরকারি কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন।

তবে আমিরাত সরকার এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, ফেরত পাঠানোর আগে প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে যারা করোনা পজিটিভ হয়েছেন তাদের ভ্রমণের অনুমতি দেয়া হয়নি।-জাগো নিউজ