ঢাকা, আজ শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০

চট্টগ্রামে কিল-ঘুষিতে প্রাণ গেল আওয়ামী লীগ নেতার

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৭ ১৪:৩৮:১৬ || আপডেট: ২০২০-০৫-০৭ ১৪:৩৮:১৬

ত্রাণ বণ্টন নিয়ে কথাকাটাকাটির জেরে যুবকদের কিল-ঘুষিতে প্রাণ গেল মো. বখতিয়ার সিকদার (৪৯) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতার।বুধবার বিকাল ৫টার দিকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার গড়দুয়ারা ইউনিয়নের বোর্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় সড়কে এ ঘটনা ঘটে।মো. বখতিয়ার সিকদার গড়দুয়ারা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বকশি সিকদার বাড়ির মৃত মনির আহাম্মদের ছেলে।

নি’হতের বড় ভাই গড়দুয়ারা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো. লোকমান বলেন, আমার ছোট ভাই গড়দুয়ারা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ত্রাণ বিতরণ কমিটির সচিব। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে সিকদার বাড়ি মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় একই ওয়ার্ডের সৈয়দ আহসান উল্লাহ মিয়াজি বাড়ির আবদুল হালিমের ছেলে মো. রানা (২৮) তাদের এলাকায় সঠিকভাবে ত্রাণ বিতরণ হচ্ছে না এমন অভিযাগ করে।

এ সময় ওই স্থানে উপস্থিত নি’হত বখতিয়ার সিকদার অভিযোগকারী যুবক রানার বক্তব্যে আপত্তি জানায়। একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে কাথা কাটাকাটি শুরু হলে স্থানীয় এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে বিষয়টি মীমাংসা হয়ে যায়।

উক্ত এলাকার বাসিন্দা যুবলীগ নেতা তারিকুল কালাম তুহিন জানান, বুধবার বিকাল ৫টার দিকে আগের দিনের কথাকাটাটির জেরে রানাসহ আরও ২-৩ জন বখতিয়ার সিকদারকে একা পেয়ে কিল-ঘুষি দিতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান বখতিয়ার।

হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম জানান, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কথাকাটাটির জের ধরে একই এলাকার যুবক রানা ও মুন্নাসহ আরও ২-৩ জনের কিল-ঘুষিতে আওয়ামী লীগ নেতা নি’হত হয়েছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।রগুনা থেকে : এক মাসের বাসা ভাড়া দিতে না পারায় বরগুনায় এক বাড়িওয়ালার বিরু’দ্ধে ভাড়াটিয়ার ঘরের চাল নিয়ে যাওয়ার অভিযো’গ উঠেছে। যদিও ঘর মালিকের দাবি, ঘর ভাড়ার ১৫ শ টাকা দিতে না পারায় ভাড়াটিয়া নিজেই স্বেচ্ছায় ভাড়ার বিনিময়ে চাল দিয়েছেন।

তবে ভাড়াটিয়ার অভিযোগ, লকডাউনে কর্মহী’ন হয়ে পড়ায় চা’প প্রয়োগ করে ঘর থেকে চাল নিয়ে গেছেন ঘর মালিক। মঙ্গলবার দুপুরের বরগুনার সদর উপজেলার গৌরিচন্না ইউনিয়নের মহাসড়ক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ভাড়াটিয়ার চাল নেওয়ার ঘটনায় অভিযু’ক্ত ঘর মালিকের নাম সরোয়ার মোল্লা। তিনি গৌরিচন্না ইউনিয়নের বাসিন্দা। আর এ ঘটনায় ভু’ক্তভো’গী ভাড়াটিয়ার নাম মো. ফারুক। তিনি বরগুনা বাসমালিক সমিতির একজন বাসচালক।

বাসচালক মো. ফারুক জানান, চলমান লকডাউনে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় তিনি কর্মহী’ন হয়ে পড়েন। এ জন্য ১৫ শ টাকা করে মার্চ ও এপ্রিল মাসের মোট তিন হাজার টাকা ভাড়া বাকি পড়ে। যদিও বাড়িওয়ালার কাছে তার অগ্রিম বাবদ একমাসের ১৫ শ টাকা দেওয়া আছে। মঙ্গলবার দুপুরে বাকি এক মাসের টাকার জন্য বাড়িওয়ালা তার বাসায় গেলে তিনি তার অসগা’য়াত্বের কথা বাড়িওয়ালাকে জানান।

এ সময় তিনি বাড়িওয়ালাকে জানান, তার ঘরে শুধু এক মণ চাল ছাড়া আর কিছুই নেই। এ সময় বাড়িওয়ালা সরোয়ার মোল্লা সেই একমণ চালই দেওয়ার কথা বলেন তাকে। একপর্যায়ে তিনি তার ঘর থেকে ওই একমন চাল নিয়ে যান। বাড়িওয়ালা সরোয়ার মোল্লা বলেন, ভাড়াটিয়া ফারুক স্বেচ্ছায় ঘরভাড়ার পরিবর্তে আমাকে চাল দিয়েছে। তাই আমি চাল নিয়েছি। ঘর ভাড়া কিংবা ভাড়ার পরিবর্তে চাল নেওয়ার জন্য আমি তাকে কোনোপ্রকার চাপ প্রয়োগ করিনি।

বরগুনার সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সাহাবুদ্দিন সাবু বলেন, করোনার এই দুঃসময়ে কর্মহী’ন হয়ে পড়া বাসচালক ফারুকের সাথে যা ঘটেছে, এর থেকে নি’র্ম’ম আর কিছু হতে পারে না। আমরা এ ঘটনায় অভিযু’ক্ত বাড়িওয়ালার দৃষ্টা’ন্তমূলক শা’স্তি চাই।

বরগুনা জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, বাসাভাড়ার পরিবর্তে বাসচালক ভাড়াটিয়ার ঘরের চাল নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি আমরা শুনেছি। তাই এ ঘটনার তদ’ন্ত শুরু করেছি আমরা। ঘটনার সত্যতা পেলে এই ন্যা’ক্কারজনক ঘটনার জন্য ঘর মালিকের বি’রু’দ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

54 0 Google +0 0 0