ঢাকা, আজ রোববার, ১৬ মে ২০২১

যতদিন দেশে নারী নেতৃত্ব থাকবে ততদিন আল্লাহর রহমত আসবে না: কাদের সিদ্দিকী!

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-০৯ ১৯:২২:৩০ || আপডেট: ২০১৯-০৭-০৯ ১৯:২২:৩০

যতদিন দেশে নারী নেতৃত্ব থাকবে ততদিন আল্লাহর রহমত আসবে না বলে মন্তব্য করে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, যতদিন পর্যন্ত এ দেশে পুরুষের শাসন কায়েম না হবে ততদিন পর্যন্ত আল্লাহর রহমত এ দেশে আসতে পারেনা। আপনাদের মধ্যে থেকে একজন যদি পূর্ণ আত্মবিশ্বাসের সাথে এগিয়ে আসে তাহলে বাংলাদেশ থেকে সকল প্রকার অন্যায় অবিচার, যুলুম, নির্যাতন, ধর্ষণ, হত্যাসহ সমস্ত অপরাধ দূর করা সম্ভব হবে। তিনি ২১ মার্চ জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের সাবেক আমীর ও হযরত হাফেজ্জী হুজুর রহ. এর বড় ছেলে মাওলানা শাহ আহমাদুল্লাহ আশরাফ রহ.-এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথ বলেন।

তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমালচনা করে বলেন, ‘তিনি নাকি মদীনা সনদ অনুযায়ী দেশ পরিচালনা করেন, আসলে তিনি তো মদীনা সনদ কি, তাতে কি লেখা আছে তাই জানেন না’। মাওলানা শাহ আহমাদুল্লাহ আশরাফ রহ. এর প্রসঙ্গে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, আহমাদুল্লাহ আশরাফের মধ্যে কোন ঈমানী দুর্বলতা ছিল না। তিনি আজীবন সমাজ ও রাষ্ট্রে ইসলামী নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠায় কাজ করেছেন। আলোচনা সভায় খেলাফত আন্দোলন প্রধান আমীরে শরীয়ত আল্লামা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুরের সভাপতিত্বে এবং মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী ও মুফতি সুলতান মহিউদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের আমীর ড. মাওলানা মুহাম্মাদ ঈসা শাহেদী, জমিয়তে ওলামা ইসলামের নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী,

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সাবেক পেশ ইমাম মাওলানা রফিক আহমাদ, ইফার সাবেক পরিচালক অধ্যাপক হাসান আব্দুল কাইয়ূম, প্রিন্সিপাল মাওলানা আবুল কালাম, খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াযী, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মহাসচিব আলহাজ কাজী আবুল খায়ের, ইসলামী আন্দোলনের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দীন, নেজামে ইসলাম পার্টির মহাসচিব মাওলানা আব্দুল মাজেদ আতহারী, মাওলানা আব্দুল আউয়াল, আলহাজ্ব আনিসুর রহমান জিন্নাহ, মৌলভী আব্দুর রকিব, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল হান্নান আল হাদী, মাওলানা ইলিয়াস মাদারীপুরী, মুফতী ফখরুল ইসলাম, মাওলানা ফিরোজ আশরাফী, মাওলানা মাহবুবুর রহমান, যুব নেতা মাওলানা ক্বারী সিদ্দিকুর রহমান ও মাওলানা আল-আমীন প্রমূখ। সুত্র: ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম

কোরআনের জ্ঞানের মাঝে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি: জায়রা ওয়াসিম ইসলাম ও জীবন কোরআনের বিশাল এবং ঐশ্বরিক জ্ঞানের মধ্যে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি। সিনেমা ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে জানালেন দঙ্গল ছবিতে খ্যাতি পাওয়া বলিউড অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম। তিনি বলেন, সৃষ্টিকর্তার জ্ঞান, তাঁর গুণাবলী, তাঁর করুণা এবং তাঁর আদেশের জ্ঞান অর্জনে তার হৃদয় শান্তি পায়। নিজের ঈমান বাঁচাতে সিনেমা ছাড়ার ঘোষণা দিলেন দঙ্গলকন্যা খ্যাত অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিম। ছবি-সংগৃহিত। জায়রা তাঁর ইনস্টাগ্রাম পোস্টে এমনটাই জানালেন। পুরো পোস্টটাই তিনি লিখেছেন ইংরেজীতে। লিখেছেন এতদিন নিজের বিবেকের সঙ্গে প্রতারণা করে কী ভাবে সৃষ্টিকর্তা দ্বারা সৃষ্টির প্রকৃত উদ্দেশ্য ভুলে নিজের জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি।

নিজের ব্যক্তিগত বিশ্বাসের বদলে আল্লাহ-র উপরেই যে ভীষণ ভাবে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন জায়রা ওয়াসিম সেই কথাও লিখেছেন। তিনি লিখেছেন, সাফল্য, খ্যাতি, সম্পদ যে পর্যায়ে পৌঁছে যাক না কেন, তাতে যেন কখনও শান্তি এবং নিজের বিশ্বাস না হারিয়ে যায়। জায়রা ওয়াসিম এর ইনস্টগ্রাম পোস্ট। ছবিটি ইনস্টাগ্রাম থেকে নেওয়া। বলিউড জীবন এবং নিজের ঈমান নষ্ট হওয়ার বিষয়ে তিনি লিখেছেন, ‘আমি বুঝতে পেরেছি আমি বহু দিন ধরেই অন্য একজন হয়ে ওঠার চেষ্টা করে চলাচ্ছিলাম। আমি বুঝতে পেরেছি, যদিও আমি এখানে সুন্দর ভাবে ফিট হতে পারব কিন্তু আমি এটার জন্য নয়। এই ফিল্ড আমাকে অনেক ভালবাসা, সমর্থন, প্রশংসা দিয়েছে,

কিন্তু এই ফিল্ড আর যেটা করেছে তা হল আমাকে ক্রমশ অবমাননার দিকে ঠেলে দিয়েছে, ক্রমশ অসচেতন ভাবে আমি আমার ঈমান (বিশ্বাস)-এর থেকে বেরিয়ে এসেছি। কারণ আমি এমন একটা পরিবেশে কাজ করতাম যা ক্রমাগত আমার ঈমানের মাঝে এসে দাঁড়াত, ধর্মের সঙ্গে আমার সম্পর্ক বিপন্ন হয়ে পড়েছিল।’ পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে থেকে নিজের ঈমান বাঁচাতে স্রষ্টার দেখানো পথে হাঁটা শুরু করলেন উদীয়মান এই নায়িকা জায়রা ওয়াসিম। ফিল্মি কেরিয়ার তাঁর বিশ্বাস এবং ধর্মের মাঝখানে এসে দাঁড়িয়েছে এবং সে কারণেই যে তিনি অভিনয় ছাড়ছেন, জায়রার পোস্টে বারবারই সে কথাই উঠে এসেছে।