ঢাকা, আজ রোববার, ১ নভেম্বর ২০২০

সংস্কার করা হচ্ছে সাওর ও হেরা গুহা ফরহাদ খান নাঈম

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০১ ২২:০৫:০৫ || আপডেট: ২০২০-০৫-০১ ২২:০৫:০৫

সংস্কার কাজের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে মক্কায় অবস্থিত সাওর ও হেরা গুহা। করোনা সৃষ্ট চলমান লকডাউনের মধ্যেই জরুরি ভিত্তিতে সংস্কার কাজ শেষ করা হবে বলে জানা গেছে।

সৌদিভিত্তিক সংবাদমাধ্যম এসপিএ’র সূত্রে জানা গেছে, মক্কা প্রদেশের শাসক যুবরাজ খালেদ আল ফয়সাল এই সংস্কার কাজের অনুমোদন দেন।

মক্কার ভারপ্রাপ্ত আমির যুবরাজ বদর বিন সুলতান উক্ত সংস্কার কাজের সার্বিক তত্ত্বাবধানে থাকবেন। মসজিদুল হারাম থেকে দুই মাইল দূরে অবস্থিত হেরা গুহা।

গুহাটি দৈর্ঘ্যে প্রায় চার মিটার ও প্রস্থে দেড় মিটারেরও বেশি। ৬১৯ খ্রিস্টাব্দে পবিত্র রমজান মাসে এই হেরা গুহাতেই প্রিয় নবী মুহাম্মদ সা.-এর উপর পবিত্র কুরআন অবতীর্ণ হয়েছিল।

হিজরতের সময় মক্কার কুরাইশগোষ্ঠীর আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নবীজী সা. আবু বকর সিদ্দিক রা.কে নিয়ে সাওর গুহায় আত্মগোপন করেছিলেন।

গুহাদদুটির সংস্কার কাজ সৌদির রাজকীয় কমিশন ও মক্কা প্রদেশের উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের যৌথ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হবে বলে জানা গেছে।

বিগত বছরগুলোতে সংস্কার কাজের অভাবে পবিত্র গুহাদ্বয়ের ব্যাপক সৌন্দর্যহানিসহ স্থানচ্যুতি ঘটায় উক্ত পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। ইতিপূর্বে সংস্কারের পরিকল্পনা থাকলেও স্বাভাবিক সময়ে গুহাদ্বয় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত হাজীদের দ্বারা লোকারণ্য থাকায় তা সম্ভব হয়নি।

সিঁড়িসহ গুহাদুটিকে তাদের মূল স্থানে স্থানান্তরিত করা হবে। প্রথম ৩০ দিনে গুহাস্থিত পাথরগুলোয় থাকা সব পুরনো লেখা ও খোদাই মুছে ফেলা হবে।

প্রযুক্তি ব্যবহার করে গুহাগামী রাস্তাগুলোতেও সংস্কার কাজ চালানো হবে। গুহাভ্যন্তরে দস্তার শামিয়ানা, কাঠের জিনিসপত্রসহ কনক্রিটের যাবতীয় অবকাঠামো অপসারণ করা হবে। পুনর্নিমাণ করা হবে গুহা পরিপার্শ্বের সবকিছু।

মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্যের ৫৫০০ আদিবাসীর ইসলাম গ্রহণ!

ইসলামের অগ্রগতি মেক্সিকোতে। ১৯৮৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত মেক্সিকোর দক্ষিণাঞ্চলীয় চিয়াপাস রাজ্যের ৫৫০০ জন আদিবাসী ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। মেক্সিকোর চিয়াপাস রাজ্যের নওমুসলিমদের সংখ্যা গত দশকে ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, কারণ তারা শান্তি ও সহাবস্থানের বার্তাকে স্বাগত জানিয়েছে।

লেবানন, সিরিয়া এবং এমনকি স্পেন থেকে মুসলিম অভিবাসীদের আগমন, মেক্সিকোতে ইসলাম প্রচারে ব্যাপক অবদান রেখেছে। মেক্সিকোর অন্যতম একটি মুসলিম কেন্দ্র হচ্ছে চিয়াপাস রাজের দক্ষিণাঞ্চলের ইসলামিক সেন্টার।তাজুতাজিল নাম প্রসিদ্ধ গোত্রের লোকেরা সেদেশের সান ক্রিস্টোবাল দে লাস কাসাস শহরে বসবাস করে।

এই গোত্রের অধিকাংশ নাগরিকই ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। তাজুতাজিল গোত্রের আদিবাসীদের সংখ্যা প্রায় তিন লাখ হবে। এই গোত্রের লোকেরা মধ্যে আমেরিকান প্রাচীন মায়া সাম্রাজ্যের অনুসারী। এই গোত্রটি মধ্য আমেরিকান প্রাচীন মায়া সাম্রাজ্য থেকে সৃষ্টি হয়েছে। উল্লেখ্য, উত্তর আমেরিকার একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় সাংবিধানিক প্রজাতন্ত্র।

এই দেশের উত্তর সীমান্তে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র; দক্ষিণ ও পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর; দক্ষিণ-পূর্বে গুয়াতেমালা, বেলিজ ও ক্যারিবিয়ান সাগর এবং পূর্বে মেক্সিকো উপসাগর অবস্থিত।প্রায় দুই মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত মেক্সিকো আয়তনের বিচারে দুই আমেরিকার পঞ্চম বৃহত্তম রাষ্ট্র তথা বিশ্বের চতুর্দশ বৃহত্তম স্বাধীন রাষ্ট্র।

দেশের জনসংখ্যা প্রায় ১০৯ মিলিয়ন, জনসংখ্যার বিচারে মেক্সিকো বিশ্বের একাদশ জনবহুল রাষ্ট্র। মেক্সিকো যুক্তরাষ্ট্র একত্রিশটি রাজ্য ও রাজধানী শহর একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় জেলা নিয়ে গঠি