ঢাকা, আজ রোববার, ১ নভেম্বর ২০২০

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডব শুরু

প্রকাশ: ২০২০-০৪-৩০ ১২:২৫:৩১ || আপডেট: ২০২০-০৪-৩০ ১২:২৫:৩১

শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) থেকে বঙ্গোপসাগরে তার তাণ্ডব শুরু করতে যাচ্ছে। বৈশ্বিক আবহাওয়াবিষয়ক সংস্থা আকু এক প্রতিবেদনে এ আভাস দিয়েছে।

আকু জানিয়েছে, শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাব থাকবে ৩০ এপ্রিল থেকে ৫ মের মধ্যে। এজন্য আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে তার তাণ্ডব শুরু হবে। আর ২ মের মধ্যে এটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে।

তবে এই ঘূর্ণিঝড় কতটা শক্তিশালী হবে এবং ঠিক কোন এলাকায় আঘাত হানবে তা সঠিক করে এখনো বলা সম্ভব হয়নি। তবে ৩ মের মধ্যে মিয়ানমারে আঘান হানতে পারে। এরপরে বাংলাদেশ ও ভারতের দিকে ধাবিত হতে পারেআন্তর্জাতিক ডেস্ক : মহামা’রী করোনাভাইরাসের দাপটে থমকে দাঁড়িয়েছে বিশ্ব। এই ভাইরাস ইতিমধ্যে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। কোভিড-১৯ প্রতিরো’ধে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও কোনো ওষুধের অনুমোদন দেয়নি।তবে বিজ্ঞানীরা নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মার্কিন বিজ্ঞানীরা করোনা রোগীদের জন্য সুখবর বয়ে আনছেন।যুক্তরাষ্ট্রের পরীক্ষাগারে রেমদেসিভির নামের একটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ আশার আলো দেখাচ্ছে। মার্কিন বায়োফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা গ্লিড সায়েন্সেসের তৈরি এ ওষুধ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল বা তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষাতেও সফল হয়েছে বলে দাবি করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

এ সাফল্যকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করোনা-বিষয়ক টাস্কফোর্সের অন্যতম কর্তাব্যক্তি ও শীর্ষ মার্কিন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা অ্যান্থনি ফসিও। গ্লিড সায়েন্সেসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রা’ন্ত রোগীদের রেমদেসিভির ওষুধটি প্রয়োগ করে দেখা গেছে রোগীর অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।

গ্লিড সায়েন্সেস বলছে, তাদের তৈরি ওষুধটি কোভিড-১৯ আক্রা’ন্তদের যত দ্রুত দেয়া গেছে, তত তাড়াতাড়ি রোগীর অবস্থার উন্নতি হয়েছে। যাদের ওষুধটি দেরি করে দেয়া হয়েছে, তাদের চেয়ে দ্রুত উন্নতি হয়েছে যাদের ওষুধটি শুরুতেই প্রয়োগ করা হয়েছে। এদিকে করোনার সম্ভাব্য ওষুধটির সফলতার খবরে বুধবার একলাফে পাঁচ শতাংশ বেড়ে গেছে গ্লিড সায়েন্সেসের শেয়ারদর।

বায়োফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থাটি জানিয়েছে, রেমদেসিভির ওষুধ প্রথমেই প্রয়োগে ৬২ শতাংশ রোগী হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে গেছে। সেখানে যাদের একটু দেরিতে ওষুধটি দেয়া হয়েছে, সে ৪৯ শতাংশ রোগীর অবস্থার উন্নতিও দেরিতে হচ্ছে।

মহামা’রী করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী ২ লাখ ২৮ হাজার ২৩৬ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে।করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রা’ন্ত হয়েছেন বিশ্বের ৩২ লাখ ২২ হাজার ৩৪৬ জন। তাদের মধ্যে বর্তমানে ১৯ লাখ ৯০ হাজার ৯৩৪ জন চিকিৎসাধীন এবং ৫৯ হাজার ৮১১ জন (৩ শতাংশ) আশ’ঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন।রোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি না হলে আসন্ন রোজার ইফতার, তারাবি নামাজ এবং ঈদের নামাজও যার যার বাসায় পড়তে হবে বলে জানিয়েছেন সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আবদুল আজিজ বিন আবদুল্লাহ আল শেখ। শুক্রবার সৌদি সংবাদমাধ্যম ওকাজ নিউজের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সৌদি প্রেস এজেন্সি জানায়, মহামা’রীর মধ্যে মসজিদে জামাতে নামাজ বন্ধ থাকায় আসন্ন রোজায় তারাবির নামাজ কিভাবে হবে, সে বিষয়ে অনেকে ইসলাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্রশ্ন করছিলেন। মন্ত্রণালয় তখন দিক নির্দেশনা চেয়ে সেই প্রশ্ন গ্র্যান্ড মুফতির কাছে পাঠায়। উত্তরে শেখ আবদুল আজিজ বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধের কারণে যদি মসজিদে যাওয়া সম্ভব না হয়, তাহলে বাড়িতেই তারাবির নামাজ পড়া যাবে। ঈদের নামাজের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য হবে।

সৌদি আরবে ইসলামি আইনশাস্ত্রের কোনো ব্যাখ্যার প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে ফতোয়া দেওয়ার চূড়ান্ত এখতিয়ার দেশটির গ্র্যান্ড মুফতির হাতে ন্যস্ত।

এর আগে সৌদি আরবের ইসলাম বিষয়ক মন্ত্রী শেখ ড. আব্দুল লতিফ বিন আবদুল আজিজ আশ-শেখও আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হতে যাওয়া রোজার মাসে ঘরে বসেই তারাবি নামাজ পড়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। সৌদি আরবে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৬ হাজার মানুষ নভেল করোনাভাইরাসে আক্রা’ন্ত হয়েছেন, মৃ’ত্যু হয়েছে অন্তত ৮৩ জনের।

মহামা’রির বিস্তার রোধে মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে মক্কার পবিত্র মসজিদুল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববী-সহ দেশটির সব মসজিদে জামাতে নামাজ পড়া বন্ধা রাখা হয়েছে। মদিনায় মসজিদে নববী কর্তৃপক্ষ বলেছে, এবারের রোজায় মসজিদে ইফতারেরও কোনো আয়োজন করা যাবে না। সূত্র- রয়টার্স।