ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০

রোজার ভেতর ইফতারের আগেই সুদের টাকার জন্য মাথা ফাটাল সুদখোর!

প্রকাশ: ২০২০-০৪-৩০ ০৯:৩২:৩০ || আপডেট: ২০২০-০৪-৩০ ১০:১৩:১৪

এই ম’হা’মা’রীর মধ্যে নেত্রকোনায় সুদের টাকার জন্য মা’থা ফা’টাল সুদখোর। এমনই একটি পোস্ট ও ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। পাঠকদের জন্য পোস্টটি হুবহু তুলে ধ’রা হলঃ

আমা’র বাড়ি ওমর’গাও, ৮নং রংছাতি ইউনিয়ন, কালামাকান্দা উপজে’লা নেত্রকোনা জে’লা। আমা’র বড় ভাই একজন সাধারণ ব্যবসায়ী তিনি ঢাকায় ইটবাটার ব্যবসা করেন তিনি প্রতিবেশি লোক তারা দুই ভাই এর কাছ থেকে সুদে ৮০ হাজার টাকা ঋ’ণ নিয়েছিল। এত দিন যথা সময়ে টাকার সুদ দিয়ে আসতেছে কিন্ত এখন ক’রোনা ভাই’রাসের কারণে ব্যবসায় স’মস্যা থাকায় তিনি মাসিক সুদ দিতে ব্য’র্থ হয়।

কিন্ত ঋ’ণদাতা আমা’দের বাড়িতে বার বার এসে নানান ব’কা ভাজি করে যান, হু’মকি ধা’মকি দেন, ভাই বলছে বলে কয়কদিন পরে দিয়ে দিবো সুদ। কিন্ত ঋ’ণদাতা মানতে নারাজ তাই গত কালকে বিকাল প্রায় ৫.০০ টা সময় আমর’া তিন ভাই নামাজে দাড়িয়েছিলাম, তখনই ঋ’ণদাতা সাইজুল মিয়া আমা’দের ঘরে ডু’কে হু’মকি দেয়, আজকের ভিতরে টাকা না দিলে অনেক কিছু হবে, এবং আমাকে নামাজ পড়তে দেয়নাই। জায়নামাজে বসে পড়ছে আর ভাই নামাজ পড়ে বলছে এখন আমা’র কাছে টাকা নাই আমাকে দুদিন সময় দেও।

পরে ঋ’ণদাতা সাইজুল আমা’র ভাইকল বলে তর টুপি খুলতে দিবনা এখনি টাকা দিতে হবে পরে ভাই বলছে বাবা এখন আমাকে মা’রলেও টাকা বের হবেনা।ঋ’ণদাতা তখনি বলে তরে মে’রেই টাকা নিব এই বলে আমা’দের ঘরে থেকে দা, নিয়ে ছুটাছুটি করে তখন তার ভাইয়েরা শুনে আমা’দের বাড়িতে এসে মা’রধর করতে লাগল তখন আমর’া ঘরের ভিতরে ঢুকে আমা’দের ঘর ভাং’চুর করতে থাকে, আমা’দের অ’মানবিক নি’র্যাতন করে, আমা’দের ঘরের ইফতারি ন’ষ্ট করে ফে’লে ।তাদের হাতে মা’ইর করার অনেক ধা’রালো জিনিস ছিল তখন

আমর’া নিরুপায় হয়ে ভ’য়ে,, ৯৯৯,,এ কল করে কলমাকান্দা থেকে পুলিশ নিয়ে আসি।পুলিশ নিজের চোখে তাদের কিছু দৃশ্য দেখে আসছে।পরে পুলিশ চলে আসার পরে আমা’দের কে অনেক কিছু বলতে তাকে এবং প্রা’ণে মা’রার হু’মকি দেয় কেন পুলিশ আমর’া এনেছি।এভাবে সারা রাত কা’টলো। সবছে দুঃ’খের বি’ষয় কালকে মাহে রমা’দ্বানের প্রহেলা ইফতার কিন্ত আমা’দেরকে ইফতার করতে দেওয়া হয়নি।

পরে আজকে সকালে আমর’া ঘু’মন্ত অবস্থা ছিলাম তখন তারা আমা’দের বাড়ি ঘেরাও করে চি’ৎকার করে বলতে তাকে আমর’া ঘর থেকে বের ‘হতাম এবং নানান ব’কাবাজি করে পর্যায়ত্রুমে আমা’দের ঘরে ঢুকার জন্য দ’রজা ভাং’চুর করে ঘরে ডু’কে আমা’দের কে এমনে আ’’হত করে, মা’থা ফা’ঠিয়ে দেয় ।বাড়ির অনেক কিছু ন’ষ্ট করে।।এলাকার মা’নুষ এসে আমা’দেরকে র’ক্ষা করে।এখন আমর’া কলমাকান্দা হাসপাতালে সকলের কাছে দ্রুত সু’স্থতা কমনা আশা করছি।

আমা’র এই কথা গু’লো বলা হয়তো উচিত হয় নাই কিন্ত নিজেকে সামলাতে পারছিন’া মা’নুষ কতটা অ’সুস্থ মন মা’নসিকতার হলে এই সময়ে এতটুক জ’ঘন্য কাজ করতে পারে।।এই ত্রুান্তিল’গ্নে সবাই ক’রোনার মো’কাবেলা করে কিন্ত আমা’দের সব কিছুর মো’কাবেলা করতে হচ্ছে। লেখা ভু’ল হলে ক্ষ’মা’র চোখে দেখবেন। ঘটনা সততা যাচাইয়ে স্বচোখে দেখছে এ’লাকাবাসী এবং থানা পুলিশ।।বিশেষ করে ওরা এলাকার অ’শৃঙ্খল নানান অ’পক্ষর্মে লি’’প্ত তাকে কিছু লোক।

আমা’র এই পোস্ট করার উদ্দেশ্য হল কিছু বিবেকবান মা’নুষের দৃষ্টি আকর্শন করা।সকলেই ক্ষ’মা দৃষ্টিতে দেখবেন।আল্লাহ হাফেজ।
আমি এই হা’মলার বিচা’র চাই৷

ফেসবুকে কমেন্টের কিছু অংশঃ

এই ব’র্বর, অ’মানবিক কাজের জন্য তীব্র নি’ন্দা জানাই।
অনতিবিলম্বে এই সুদখোরকে গ্রে’’ফতার করে, বি’চারের আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের কাছে জো’র দা’বী জানাই। ✊
(গ্রামে গঞ্জে অসংখ্য সুদখোর গড়ে উঠেছে এদের থেকে ইনকাম টেক্স নেওয়া এখন সময়ের দাবী, এই সুদখোররা প’শুর চেয়েও নি’কৃষ্ট, ।)

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত
কুমিল্লার হোমনায় এক বি’ধবা না’রীকে (২০) রা’স্তা থে’কে তু’লে নি’য়ে ই’য়াবা খা’ইয়ে গণধ’র্ষ ণের অ’ভিযোগ উ’ঠেছে। ধ’র্ষ’ণের ঘ’টনায় ভি’কটিম নি’জে হোমনা থা’নায় মা’মলা দা’য়ের করেন।

মঙ্গলবার পু’লিশ ভি’কটিমকে প’রীক্ষার জন্য কুমিল্লা মে’ডিকেল ক’লেজ হা’সপাতালে পা’ঠিয়েছে। সোমবার রা’তে উপজেলার কালমিনা এ’লাকা থেকে ধ’র্ষণে অ’ভিযুক্তদের গ্রে’ফতার করে পু’লিশ।

ধ’র্ষণের অ’ভিযোগ আ’টকরা হ’লো- সজিব ওরফে ডি’জে (২২), রুবেল (২৮), শরিফ মিয়া (২৮), রিপন (২৬)।অ’ভিযোগ সূত্রে এবং ভি’কটিমের স’ঙ্গে কথা বলে জানা যায়. গত দেড় বছর আ’গে তার স্বা’মী মা’রা যা’ন।

তার এক শি’শুপু’ত্র র’য়েছে। গত ২-৩ মাস ধ’রেওই না’রীকে রা’স্তা-ঘা’টে রুবেল, শরিফ মিয়া, রিপন ও রফিক বিভিন্ন অ’শা’লীন ক’থাবা’র্তা এবং টা’কার বি’নিময়ে কু’প্র’স্তাব দিত। রবিবার স’ন্ধ্যায় ওই না’রী তার শি’শু পু’ত্রের জন্য খা’বার কে’নার উ’দ্দেশ্যে বা’ড়ি থেকে বে’র হন।

আলীপুর স্টিল ব্রি’জের পূর্ব পা’র্শ্বে রা’স্তায় পৌঁছলে এরা তাকে একটি সি’এনজি অ’টো রি’কশাতে তু’লে সজিব ওরফে ডিজের বসত ঘরে নিয়ে যায়। সজিব তা’র ঘ’রের ভে’তর রুবেল, শরিফ মিয়া, রিপন ও রফিকদের কাছে ওই না’রীকে রেখে ঘরের দরজার বাইরে সে পাহারা দেয়।

ওই সময়ে যু’বকরা তাকে ই’য়াবা সে’বন ক’রায়।পরে তাকে চারজন ধ’র্ষ’ণ করে। এরপর এরা প’রের দিন সোমবার ভো’র ৫টার দিকে তাকে রামপুর জো’ড়া ব্রি’জের ও’পর ছে’ড়ে চলে যায়। বা’ড়ি গি’য়ে তার মা’সহ প্র’তিবেশীকে ঘ’টনা জানান।

হোমনা থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত ক’র্মকর্তা আবুল কায়েস আকন্দ বলেন, এক বি’ধবা না’রীকে গণধ’র্ষ’ণের অ’ভিযোগে থা’নায় মা’মলা হয়েছে। চার ধ’র্ষককে আ’টক করা হয়েছে। মে’য়েটিকে ডা’ক্তারি প’রীক্ষার জন্য কুমিল্লা মে’ডিকেল ক’লেজ হা’সপাতালে পা’ঠা’নো হয়েছে।

আরো পড়ুন-করোনায় বাংলাদেশসহ ৫৭টি দেশে খাদ্য সহায়তা পাঠিয়েছে তুরস্ক

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৫৭টি দেশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কভুসোগলু সোমবার এ কথা জানিয়েছেন।

মহামারি মোকাবেলায় তুরস্ক নিজ দেশে লকডাউন, কোয়ারেন্টাইন মেনে চলাসহ অনেক দেশে চিকিৎসা সহায়তা সরবরাহ করে চলেছে।

এ ব্যাপারে গত ১৩ এপ্রিল তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেন, ব্যাথা অনুভব করার অর্থ আপনি বেঁচে আছেন। অন্যের বেদনা অনুভব করতে পারলেই আপনি মানুষ। তিনি আরো বলেন, মহামারির এই সময়টি তিনি তার বন্ধু দেশগুলোর পাশে দাঁড়াতে চান। আগামীতেও তুরস্কের সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

দেশটি প্রায় শতাধিক দেশের কাছ থেকে সাহায্যের অনুরোধ পেয়েছে। তুরস্ক সরকার যুক্তরাজ্য, ইতালি ও স্পেনেসহ পাঁচটি মহাদেশে চিকিৎসা ও সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম পাঠিয়েছে।

তুরস্কের চিকিৎসা সহায়তা পাঠানো দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, পাকিস্তান, চীন, ইন্দোনেশিয়া, আফগানিস্তান, ফিলিপাইন, কিরগিজস্তান, আলজেরিয়া, ইয়েমেন, তিউনিসিয়া, লেবানন, ফিলিস্তিন, কলোম্বিয়া, ইসরাইল, ইরান, ইরাক, লিবিয়া। এছাড়াও জার্মান, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, মলদোভা, আজারবাইজান, জর্জিয়া, আলবানিয়া, মন্টিনিগ্রো, বুলগেরিয়া, কোসোভো, বসনিয়া, সার্বিয়াসহ আরো কয়েকটি দেশে চিকিৎসা সহায়তা সরবরাহ করেছে।

মহামারি মোকাবেলায় আফ্রিকার ছয়টি দেশেও তুরস্কের পক্ষ থেকে সহায়তা পাঠানো হয়েছে।

সহায়তা সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে করোনা টেস্টিং কিট, মেডিক্যাল মাস্ক, পিপিই, জীবাণুনাশক।

গত সপ্তাহে রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো তুরস্কের কাছ থেকে কেনা চিকিৎসা সরঞ্জামের জন্য দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেতিন কোকাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপের আঞ্চলিক পরিচালক হান্স কুলগে তুরস্ককে এই মহামারিকালীন সময়ে আন্তর্জাতিক সংহতি ও বহু দেশকে সহায়তার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি