ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই ২০২০

ভুট্টাক্ষেতে প্রতি’বন্ধী কিশোরীকে ধ’র্ষণ

প্রকাশ: ২০২০-০৪-২৯ ২২:১০:২৬ || আপডেট: ২০২০-০৪-২৯ ২২:১০:২৬

টাঙ্গাইলের মধুপুরে মাদরাসায় অধ্যয়নরত রাজু (১৭) নামের এক কিশোরের বি’রুদ্ধে মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরী (১৪) ধ’র্ষণের অ’ভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে পুলিশ রাজুকে আ’টক করতে অ’ভিযান শুরু করে বুধবার ভোর রাতে অবশেষে আ’টক করতে সক্ষম হয়েছে।

উপজেলার শেষ প্রান্তে গোপালপুরের রামনগর এলাকার এক দাদার বাড়ি থেকে পুলিশ তাকে আ’টক করেছে। অ’ভিযানে নেতৃত্ব দেয়া মধুপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জোবাইদুল হক রাজুকে আ’টক করার কথা নিশ্চিত করেছেন।

ধ’র্ষক রাজু স্থানীয় টেংরি হাফেজী মাদরাসা ছাত্র এবং মধুপুর পৌর এলাকার পুন্ডুরা গ্রামের হানি খন্দকারের ছেলে। স্থানীয়রা জানায় , গত ২৬ এপ্রিল দিন দুপুরে লোভ দেখিয়ে বাড়ির পাশের ভুট্রা ক্ষেতে নিয়ে রাজু তাকে ধ’র্ষণ করে। গত দুইদিন এ নিয়ে ধ্যান দরবার চলছিল।

অসহায় ওই প্রতিবন্ধীর মা ছাড়া পরিবারের তেমন কেউ নেই। স্থানীয় মাতাব্বরগণ দরিদ্র অসহায় প্রতিবন্ধীর ওই পরিবারকে বুঝিয়ে মীমাংসার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

পুলিশ খবর পেয়ে অ’ভিযান শুরু করে। মধুপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জোবাইদুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মসজিদে গিয়ে নামাজ না আদায় করতে বলেছে সরকার। এ ব্যপারে সরকার কিছু নির্দেশনাও দিয়ে দেয়। কিন্তু গতকাল গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম সিটির মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়তে কোনো বাধা থাকবে না বলে ঘোষণা দেন।

সরকারি নির্দেশনার বিরুদ্ধে গিয়ে মেয়য়ের এমন ঘোষণায় আজ বুধবার বিকালে ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আবদুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেছেন, এ ঘোষণা প্রত্যাহার করা না হলে কড়া ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, তার (মেয়রের) এমন ঘোষণাকে আমরা চরম বিরোধী হিসেবে দেখছি।

অত্যন্ত কঠিনভাবে প্রতিবাদ জানিয়েছি আমরা। তাকে বার্তা দেয়া হয়েছে, অতি অল্প সময়ের মধ্যে ওই ঘোষণা প্রত্যাহার করে সরকার যেভাবে চায় সেভাবে ঘোষণা দিতে। মনে হয় সেটা তিনি দিচ্ছেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলসহ স্থানীয় সব নেতা মেয়রের এই ঘোষণার বিপক্ষে। স্থানীয়ভাবে মাইকিং হচ্ছে, এমন ঘোষণা দেয়ার কোনো এখতিয়ার মেয়রের নেই, এই ঘোষণায় কান দেবেন না।

শেখ আবদুল্লাহ আরও বলেন, মেয়র জাহাঙ্গীর তার ঘোষণা প্রত্যাহারে কিছুটা সময় চেয়েছেন। সেই সময় পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করছি। প্রত্যাহার না করলে কড়া ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত পৌঁছেছে।

এর আগে মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বোর্ডবাজার আঞ্চলিক অফিস থেকে এক ভিডিও বার্তায় মেয়র মুসল্লিদের জন্য মসজিদ খুলে দেয়ার ঘোষণা দেন। ভিডিওতে তিনি বলেন, ‘গাজীপুর সিটি করপোরেশন এবং গাজীপুর জেলা এই দুটি এলাকাকে নিয়েই গাজীপুর বলা হয়।

সেজন্য আমরা বলছি, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে করোনা পজিটিভের সংখ্যা অনেক এলাকার চেয়ে কম বলে আমরা মনে করি। এটা আমরা নথিপত্র ঘেঁটে দেখেছি। সেজন্য আমরা মনে করি যেহেতু গার্মেন্ট চালু করে দিয়েছে বিজিএমইএ,

সেহেতু আমাদের যেসব ওয়ার্ডে কোনও করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী নেই সেগুলোতে আগামী শুক্রবার থেকে মসজিদভিত্তিক মানুষ তারাবিসহ জুমার নামাজ পড়তে পারবেন। যেহুতো গার্মেন্টস চালু হয়েছে। সেহুতো আল্লাহ্‌র ঘর মসজিদ চালু থাকা দরকার। ঈমানদার মানুষ যারা আছেন তারা সকলেই নামাজ পড়েন।

আল্লাহ্‌র কাছে দোয়া করা আমাদের প্রয়োজন, আল্লাহ্‌ই আমাদের হেফাজত করবেন। এখন রমজান মাস। তাই এসব এলাকায় মুসল্লিরা যাতে মসজিদে নামাজ পড়তে পারেন সেজন্য আমরা সিটি করপোরেশন থেকে তাদের সার্বিকভাবে সহযোগিতা করব।

সবাই যেন আল্লাহ্‌র কাছে চাই করোনা ভাইরাস থেকে গাজীপুরসহ সারাদেশ এবং বিশ্ববাসী যেন নিরাপদে থাকে।

ইরানে একজন করোনারোগীও বিনা চিকিৎসায় মারা যায়নি: রুহানি

শত প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ইর্ষনীয় সাফল্য পেয়েছে ইরান। এমন দাবি করে দেশটির প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে চিকিৎসা সরঞ্জাম সংগ্রহের ক্ষেত্রে নানা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছে তেহরান। এতদ সত্ত্বেও করোনাভাইরাস মোকাবেলায় তার দেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে।

প্রেসিডেন্ট রুহানি স্থানীয় শনিবার সন্ধ্যায় তেহরানে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এসব কথা বলেন।

করোনাভাইরাসকে বিশ্বের সবগুলো দেশের সরকারের জন্য একটি ঐতিহাসিক পরীক্ষা হিসেবে উল্লেখ করে রুহানি বলেন, দেশের অর্থনীতি সচল রেখে কীভাবে জনগণের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা যায় গোটা বিশ্ব এখন সে পরীক্ষায় অবতীর্ণ।

ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের অবৈধ নিষেধাজ্ঞার প্রতি ইঙ্গিত করে রুহানি বলেন, বিশ্বের বহু উন্নত দেশ করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমশিম খেলেও ইরানে এই প্রাণঘাতী রোগে আক্রান্ত কোনো রোগী বিনা চিকিৎসায় মারা যায়নি। নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও করোনা রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করেছে তেহরান।

করোনার মাত্রা হ্রাস; ১২৭ শহরের মসজিদ খুলে দিচ্ছে ইরান

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি তার দেশের অন্তত ১০০ শহরের মসজিদসহ অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান আবার খুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।সম্প্রতি ইরানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার স্বার্থে সারাদেশের সকল মসজিদ বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল।

রোববার তেহরানে করোনা মোকাবিলায় গঠিত জাতীয় টাস্কফোর্সের নিয়মিত বৈঠকের পর এর সভাপতি ড. হাসান রুহানি বলেন, করোনা সংক্রমণের মাত্রা কমে আসার ভিত্তিতে সারাদেশের শহরগুলোকে লাল, হলুদ ও সাদা এই তিন ভাগে বিভক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

লাল ও হলুদ হিসেবে চিহ্নিত শহরগুলোতে আগের মতোই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নিয়ম চালু থাকবে। তবে সংক্রমণ কমে আসার কারণে সাদা হিসেবে চিহ্নিত প্রায় ১২৭টি শহরে বিধিনিষেধ উঠিয়ে নেয়া হচ্ছে। শিগগিরই কিছু নিয়ম মেনে চলার শর্তে এসব শহরের মসজিদগুলো মুসল্লিদের জন্য খুলে দেয়া হবে বলে জানান প্রেসিডেন্ট রুহানি।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি
সাদা শহর চিহ্নিত করার উপায় সম্পর্কে তিনি বলেন, কোনো শহরে যদি এক সপ্তাহে নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত না হন বা মারা না যান এবং সেইসঙ্গে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে তবে ওই শহরকে আরো এক সপ্তাহ পর্যবেক্ষণ করা হবে। দ্বিতীয় সপ্তাহে যদি একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে তাহলে ওই শহরকে ‘সাদা শহর’ হিসেবে চিহ্নিত করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হবে।

ইরানে এ পর্যন্ত ৯০ হাজারের বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৬৯ হাজার ৬৫৭ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন। এ ছাড়া, ইরানে এই রোগে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৫ হাজার ৭১০ জন