ঢাকা, আজ রোববার, ১১ এপ্রিল ২০২১

অচেতন করে প্রতিবন্ধী দুই নারীক ধ*র্ষণ,এলাকাবাসীর গণপিটুনিতে ধ*র্ষক নি*হত

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-০৮ ১৩:৪২:৫২ || আপডেট: ২০১৯-০৭-০৮ ১৩:৪২:৫২

কবিরাজ পরিচয় দিয়ে চিকিৎসার কথা বলে দুই নারীকে ধ*র্ষণ করেছিলেন এক ব্যক্তি। কিন্তু সেই খবর জানার পর সেই ধ*র্ষককে পিটিয়ে হ*ত্যা করেছে ধ*র্ষণের শিকার ওই দুই নারীর গ্রামের লোকজন।ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের আসাম প্রদেশের কার্বি আলং জেলার সিতোই আদম নামের গ্রামে। গ্রামবাসীরা বলছেন, পুলিশের অপেক্ষায় না থেকে তারা নিজ হাতেই সাজা দিয়েছেন ধ*র্ষককে।স্থানীয় পুলিশ বলছে, গণপিটুনিতে নি*হত ওই কবিরাজের নাম হোসেন আলী। তার বাড়ি পাশের হোজাই জেলার রাইকাটা নামক স্থানে।

গত ১ জুলাই সিতোই আদম গ্রামে গিয়েছিল ওই ‘ভণ্ড’ কবিরাজ। সেখানে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক নারীকে দেখার পর সে জানায় ৩ জুলাই আবার আসবে।নির্ধারিত দিনে ফের ওই নারীর বাড়িতে আসে সে। কিন্তু চিকিৎসার অজুহাতে ওই নারীর নাকে কোনো কিছু শুকিয়ে অর্ধচেতন করার পর ধ*র্ষণ করে। কিন্তু সেখানেই ক্ষান্ত দেয়নি সে। পরে বৃহস্পতিবার আবার আসে। এদিনও একই কায়দায় গত দিনের ভুক্তভোগী নারীর এক ১৬ বছর বয়সী আত্মীয়কে ধ*র্ষণ করে।
এরপর কবিরাজের এই কাণ্ড মুহূর্তেই গ্রামে জানাজানি হয়ে যায়। গ্রামের লোকজন কবিরাজ পরিচয়ের ওই ধ*র্ষককে আটক করে। তারপর গ্রামের লোকজন মিলে বিশেষ করে নারীরা ওই কবিরাজকে পিটুনি দিলে সে মা*রা যায়।পুলিশ এখন ঘটনাটির তদন্ত করছে।

আরো সংবাদবিশ্বে প্রথম সুঁই-সুতোয় কুরআন তৈরি করলেন পাকিস্তানি নারী নাসিম আখতার!বিশ্বে প্রথম সুঁই-সুতোয় তৈরি হলো কুরআন- সুই-সুতোর বুননে বিশ্বের প্রথম হাতে সেলাই করা কুরআনের পাণ্ডুলিপি সম্পন্ন করেছেন পাকিস্তানি নারী নাসিম আখতার। ৩২ বছরের নিরলস চেষ্টায় তিনি এ পাণ্ডুলিপিটি তৈরি সমাপ্ত করেন। অনেক মানুষই ইসলামের জন্য কিছু করতে চান।ইসলামের প্রতি একান্ত ভালোবাসাই মানুষ অনেক কঠিন কাজ বাস্তবে রূপ দেন। এমনই একটি দুঃসাহসিক কাজ হাতে সেলাই করা কুরআনের পাণ্ডুলিপি। ৩২ বছরের নিরলস প্রচেষ্টায় নসিম আখতার বিশ্বের প্রথম হাতে লিখিত কুরআনের পাণ্ডুলিপিটি তৈরি করেছেন।ইসলামের জন্য তাঁর প্রচেষ্টা ও ভালবাসায় আজ তিনি বিশ্ব মুসলিমের সামনে সম্মানের আসনে আসীন। নিঃসন্দেহে এটি একটি চমৎকার পরিবেশন। হাতে সেলাই করা এ কুরআনের ওজন ৬০ কেজি। এটি তুলা দিয়ে তৈরি। সোনালী রংয়ের কারুকাজ করে প্রতিটি পৃষ্ঠাকে সুসজ্জিত করা হয়েছে।কাভারে সিল্কের সুতা দ্বারা সুন্দরভাবে সজ্জিত করা হয়েছে। নাসিম আখতার যখন এই কাজ শুরু করেন তখন তিনি কম বয়সী ছিলেন। ৩২ বছরের অক্লান্ত পরিশ্রমে সুই-সুতোয় কুরআনের পাণ্ডুলিপি তৈরি করে তিনি তার স্বপ্নের বাস্তবায়ন করেন।

কুরআনের অসামান্য পাণ্ডুলিপিটি সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে পেরে সে এক বিশাল মাইল ফলক অর্জন করেছেন। আর এ কাজে তিনি শান্তি ও স্বস্তি বোধ করেন। নাসিম আখতারকে তার অসামান্য কাজের খবর পেয়ে সৌদি আরব তাকে আমন্ত্রণ জানায়।পবিত্র কুরআনের এ পাণ্ডুলিপিটি তারা সংরক্ষণে দায়িত্ব নেয়। নাসিম আখতারের হাতে লেখা এ পাণ্ডুলিপিটি মসজিদে নববির কুরআর সংরক্ষণ মিউজিয়ামে সংরক্ষণ করা হয়।মসজিদে নববির ৫নং গেট দিয়ে প্রবেশ করে বাম দিকে গেলেই চোখে পড়বে নাসিম আখতারের হাতে লেখা সুই-সুতোর বুননে পবিত্র কুরআনুল কারিমের তৈরি পাণ্ডুলিপিটি। আল্লাহ তাআলা নাসিক আখতারের এ কাজকে কবুল করুন। আমিন