ঢাকা, আজ রোববার, ১৬ মে ২০২১

জুম্মার নামাজ পড়তে দিচ্ছেনা ভারতীয় মুসলিমদের

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-০৬ ০৫:৩৬:১৯ || আপডেট: ২০১৯-০৭-০৬ ০৫:৩৬:১৯

শুক্রবার জুমার নামাজে সব মসজিদে মুসল্লিদের উপস্থিতি থাকে অন্যান্য দিনের ওয়াক্তের নামাজের তুলনায় অনেক বেশি। জুমায় মুসল্লিদের উপস্থিতি বেশি হওয়ায় অনেক মসজিদেই জায়গা সংকট দেখা দেয়। বাধ্য হয়ে মুসল্লিরা মসজিদের সামনের রাস্তায়ও নামাজ আদায় করেন। কিন্তু ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতাকর্মীরা এর বিরোধীতা করে তারাও রাস্তায় অবস্থান করে পালন করছে হনুমান চালিশা।ভারতীয় জনতা পার্টি যুব মোর্চার শতাধিক নেতাকর্মী এ সভায় উপস্থিত হন। স্থানীয় প্রশাসনের কাছে তারা রাস্তায় জুমআর নামাজ বন্ধের দাবি জানান। যতদিন পর্যন্ত না রাস্তায় নামাজ পড়া বন্ধ না হবে ততদিন তারা সব মন্দিরের সামনের রাস্তা বন্ধ করে হনুমান চালিশা পাঠের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।মুসলমানদের পবিত্র জুমার নামাজ আদায়ে মসজিদে স্থান সংকুলন না হওয়ায় তারা মসজিদ সংলগ্ন রাস্তায় দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করে। আর এতে আপত্তি জানিয়ে আসছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হাওড়ার বিজেপি যুব মোর্চার নেতাকর্মীরা।গত মঙ্গলবার হাওড়ার বালির ডবসন রোডে রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে হনুমান চালিশা (মন্ত্র) পাঠ করেছে বিজেপি কর্মীরা।গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, হাওড়ার বালির ডবসন রোডে প্রথমে পথ বন্ধ করে দেয় বিজেপির নেতাকর্মীরা।

সেখানে তারা মুসলিমদের রাস্তায় নামাজের প্রতিবাদে হনুমান চালিশা (মন্ত্র) পাঠ করে। হাওড়া জেলা বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি ওম প্রকাশ সিং বলেন, ‘যতদিন না মুসলিমরা রাস্তায় নামাজ পড়া বন্ধ না করবে, ততদিন আমরাও রাস্তা বন্ধ করে হনুমান চালিশা পড়বো। রাস্তায় নামাজ পড়া বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত চলবে আমাদের এ প্রতিবাদ।এ ছাড়াও যুব মোর্চা জিটি রোড বন্ধ করে ৫ বার হনুমান চালিশা পাঠ করে। মুসলিমদের নামাজ পড়া বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তারা প্রতি মঙ্গলবার হাওড়ার সব মন্দিরের সামনের রাস্তা বন্ধ করে হনুমান চালিশা পাঠ করার ঘোষণা দেয়।উল্লেখ্য যে, মুসলিম ইচ্ছাকৃতভাবে রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে নামাজ পড়ে না। বরং যদি কোনো মসজিদে মুসল্লির সংখ্যা বেড়ে যায়, তবে তারা মসজিদ সংলগ্ন রাস্তায় শুধু নামাজ পড়েই তা ছেড়ে দেয়। নামাজের সময় ছাড়া মুসলিমরা রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে বসে থাকে না।