ঢাকা, আজ রোববার, ১১ এপ্রিল ২০২১

মুসলিম ও ভয় একসঙ্গে থাকতে পারে না, হয় ভয় থাকবে না হয় মুসলিম থাকবে- ওয়াইসি !

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৫ ১০:৪৩:২৩ || আপডেট: ২০১৯-০৬-১৫ ১০:৪৩:২৩

অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) সুপ্রিমো ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি বলেছেন, ‘যদি কেউ ভেবে থাকে যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী তিনশ’ আসন পেয়ে যা খুশি তাই করবে, সেটা কিন্তু হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীকে আমি বলতে চাই যে সংবিধানের শক্তির উপরে আসাদউদ্দিন ওয়াইসি আপনার বিরুদ্ধে লড়াই করবে। মজলুম মানুষের ইনসাফের জন্য লড়াই করবে। জুলুম নির্মূল করার জন্য লড়বে। অধিকার অর্জনের জন্য লড়বে।’

ওয়াইসি গত (শুক্রবার) হায়দ্রাবাদের মক্কা মসজিদে দেয়া ভাষণে বলেন, ‘যদি প্রধানমন্ত্রী মোদি মন্দিরে যেতে পারেন তাহলে আমরাও মসজিদে যেতে পারি। যদি প্রধানমন্ত্রী মোদি গুহায় যেয়ে ধ্যান করতে পারেন তাহলে আমরা মুসলিমরাও গর্বের সঙ্গে মসজিদে বসে নামাজ আদায় করতে পারি।

দেশের মুসলিমদের ভারতে বিজেপি ক্ষমতায় আসার জন্য ভয় পাওয়া উচিত নয়। কারণ সংবিধানে প্রত্যেক নাগরিকের ধর্মীয় স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। ভারতীয় আইন, সংবিধান আমাদেরকে ধর্ম পালনের অধিকার দিয়েছে।’ ওয়াইসি বলেন, ‘সম্মানিত বন্ধুরা ভয় পাওয়ার কিছু নেই। মনে রাখো আমরা মুসলিম।

মুসলিম ও ভয় একসঙ্গে থাকতে পারে না। হয় ভয় থাকবে না হয় মুসলিম থাকবে। আমরা এখানেই থাকব ইনশাআল্লাহ্তায়ালা। ভয় পাওয়ার প্রয়োজন নেই।’

ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি হায়দ্রাবাদ থেকে এ নিয়ে একনাগাড়ে চারবার নির্বাচিত হয়েছেন।

রোজা ভঙ্গকারীদের ধরতে রাঁধুনি বেশে হোটেল ও রেস্টুরেন্ট মালয়েশিয়ার গোয়েন্দারা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক পবিত্র রমজান মাসে যে সমস্ত মুসলিম রোজা রাখছেন না তাদেরকে ধরার জন্য মালয়েশিয়ার বেশ কিছু সরকারি কর্মকর্তা রাঁধুনি এবং খাদ্য পরিবেশনকারীর ছদ্মবেশ ধারণ করেছেন।

মালয়েশিয়ায় যেসমস্ত মুসলিমরা রোজা রাখছেন না তাদের কে আইনের আওতায় আনার জন্য নেয়া কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দেশটির ৩২ জন সরকারি কর্মকর্তা স্থানীয় বিভিন্ন খাদ্য বিপণিতে ছদ্মবেশে অবস্থান করছেন।

দেশটির ‘New Straits’ ‘Times newspaper’ সহ বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যম এই তথ্য দিয়েছে। ইসলামি আইন অনুযায়ী একজন মুসলিম কে পবিত্র রমজান মাসের দিনের বেলায় রোজার অংশ হিসেবে অবশ্যই সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত উপবাস থাকতে হয়, কিন্তু গুরুতর অসুস্থতা সহ বিশেষ কিছু কারণে ভাঙ্গার অনুমতি রয়েছে।

মালয়েশিয়ার দক্ষিণের রাজ্য জোহোর এর সেগামাত ডিস্ট্রিকে পবিত্র রমজান মাসে রোজা না রাখা মুসলিমদের হাতে নাতে ধরার জন্য নিয়োজিত দলটির মধ্য থেকে দুজন কর্মকর্তা কে রন্ধন শিল্পীর ছদ্মবেশ বেছে নিতে বলা হয়েছে যারা ফ্রাইড নুডলসের মত স্থানীয় বিভিন্ন জনপ্রিয় ডিশ তৈরীতে পারদর্শী।

সেগামাত মিউনিসিপাল কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদ মাসনি ওয়াকিমান বলেন, ‘আমরা এই কাজের জন্য বিশেষ কাজে পারদর্শী কর্মকর্তাদের নিয়োগ দিয়েছি যারা তাদের কাজের অংশ হিসেবে ছদ্মবেশ ধারণ করেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মকর্তারা এমন ভাবে ইন্দোনেশিয়ান এবং পাকিস্তানি সূরে কথা বলেন যাতে করে ক্রেতারা বিশ্বাস করতে বাধ্য হয় যে, তাদেরকে রন্ধন শিল্পী এবং খাদ্য পরিবেশক হিসেবেই নিয়োগ দেয়া হয়েছে।’ তবে খাদ্য বিপণি সমূহে নিয়োগ দেয়া বেশিরভাগ কর্মকর্তাই দেশটিতে অভিবাসী হয়ে আশা কর্মী।

মুহাম্মাদ মাসনি বলেন, কর্মকর্তারা যখন দেখেন দিনের বেলায় কোনো মুসলিম খাদ্যের জন্য ফরমায়েশ দিচ্ছেন তখন তারা ক্রেতাদের অজান্তে তাদের আলোকচিত্র ধারণ করে রাখেন এবং পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য এসমস্ত আলোকচিত্র স্থানীয় ধর্মীয় বিভাগের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ার আইন ব্যবস্থায় দুধরনের বৈশিষ্ট্য দেখা যায়। এর একটি হচ্ছে গতানুগতিক আইন আরেকটি হচ্ছে কিছু নির্দিষ্ট অঞ্চলে মুসলিমদের জন্য ইসলামিক আইন। উদাহরণ সরূপ দেশটির জোহোর রাজ্যে যেসমস্ত মুসলিম পবিত্র রমজান মাসে রোজা রাখছেন না তাদের কে ইসলামি আইন অনুযায়ী ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং সর্বচ্চ ২৪০ মার্কিন ডলার জরিমানা করা হয়।

মালয়েশিয়ার ৩২ মিলিয়ন জনগোষ্ঠীর মধ্যে অন্তত ৬০ শতাংশ মানুষ জাতিগত ভাবে মালয় মুসলিম এবং দেশটিতে একই সাথে চীন ও ভারতীয় অনেক জাতিগোষ্ঠীর সংখ্যালঘুরা বসবাস করে যারা সাধারণত ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করে না। সূত্র: ডেইলিমেইল ও আরটিএনএন