ঢাকা, আজ শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সৌদির ৩ ঘাঁটি ও ১৫০ বর্গকিমি. এলাকা দখলে নিয়েছে হুতিরা!

প্রকাশ: ২০১৯-১০-০২ ২১:০৩:১৫ || আপডেট: ২০১৯-১০-০২ ২১:০৩:১৫

ইয়েমেন সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের নজরান প্রদেশে সাম্প্রতিক হামলায় সৌদি আরবের তিনটি সামরিক ঘাঁটি এবং ১৫০ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ন্ত্রণে নেয়ার দাবি করেছে ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীরা।

মঙ্গলবার বিকালে ইয়েমেনের রাজধানী সানায় এক সংবাদ সম্মেলনে হুতি মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি এ দাবি করেন। খবর ইরনার। তিনি বলেন, এই অভিযানে সৌদি সামরিক ঘাঁটি দখল এবং সেখান থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ১৩০টির বেশি আর আর্মার্ড ভেহিকেল ধ্বংস ও দখল এসেছে।

সম্প্রতি যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে তাতে এসব এলাকায় নিজেদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের চিত্র দেখা গেছে বলেও দাবি করেন হুতি মুখপাত্র। জেনারেল ইয়াহিয়া সারি আরও বলেন, আমাদের সামরিক বাহিনীর অভিযান বন্ধ হবে না; সশস্ত্র বাহিনী বিভিন্ন ধরনের অভিযান অব্যাহত রেখেছে এবং শত্রু র হামলা মোকাবেলার জন্য আমাদের হাতে প্রচুর অস্ত্র ও গোলাবারুদ রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হ’ত্যা, দুই হাজার সেনাকে আটক ও সামরিক বাহিনীর যানবাহনের একটি বহরকে জব্দের কথা দাবি করেছে হুতি বিদ্রোহীরা। ৭২ ঘণ্টার ওই অভিযানে সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হ’ত্যা ও কয়েক হাজার সেনা সদস্য আটকের দাবি করেছে তারা। সৌদি সেনা হ’ত্যা ও গ্রে’ফতারের দাবির পক্ষে প্রমাণ হিসেবে স্থির চিত্র ও অসম্পূর্ণ ভিডিও উপস্থাপন করেছেন বিদ্রোহীরা।

ছবিতে সেনারা উর্দি পরিহিত না, আবার দাবিকে সত্য বলে প্রমাণ করতে যথেষ্ট প্রমাণ যেমন নেই, তেমন সৌদি আরবের কাছ থেকেও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি। উল্টে যাওয়া সৌদি যান, স্থির দাঁড়িয়ে থাকা সৌদি সেনা বহরের যানবাহনের ছবি দেখিয়ে হুতিরা বলেন, দক্ষিণ নাজরান অঞ্চলে গত তিন দিন ধরে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

তবে ইরানের প্রেস টিভি দাবি করেছে, হুতি বাহিনী যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে তাতে সৌদি আরবের কোন এলাকায় তারা অভিযান চালিয়েছে তা

মনমোহন সিংকে আমন্ত্রণ জানাল পাকিস্তান

পাক-ভারত তুমুল উত্তেজনার মধ্যেই ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে পাকিস্তান। শিখ ধর্মাবলম্বীদের কারতারপুর করিডোরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাকে এ আমন্ত্রণ জানিয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিবেশী পাকিস্তান।

সোমবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি এক ভিডিওবার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, কারতারপুর করিডোরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি পাকিস্তানের জন্য অত্যন্ত খুশির বিষয়, পাকিস্তান সরকার এ জন্য ব্যাপক প্রস্তুতিও নিচ্ছে।

পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিষয়টিতে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ব্যক্তিগত আগ্রহ রয়েছে। পরামর্শের পর আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, কারতারপুর করিডোরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমরা ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে আমন্ত্রণ জানাবো। ভিডিও তে মনমোহন সিং শিখদেরও প্রতিনিধিত্ব করেন।

এজন্য পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে এবং আমি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে তাকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। সরকারিভাবে মনমোহন সিংকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি। ৩৭০ধারা বাতিলের পরই ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

তবে দিল্লীর অনুরোধে সাড়া দিয়ে কারতারপুর সাহিব করিডোর ভারতীয় শিখ তীর্থযাত্রীদের জন্য খুলে দিবে পাকিস্তান। কারতারপুর করিডোরের কাজ শেষ হওয়ার আগেই ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তিক্ততার পরিবেশ।

আগামী ৯ নভেম্বর করিডোরটি খুলে দিচ্ছে পাকিস্তান। গুরু নানকের ৫৫০ তম জন্মজয়ন্তীতে কারতারপুর করিডোর খোলা রাখা হবে এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ২৮ নভেম্বর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। সূত্র: ডন ও জিয়ো নিউজ উর্দূ